আগডুম বাগডুম কবিতা

শরৎ
আহাদ আলী মোল্লা

আজকে আমার মন মেতেছে
শিউলি ঝরা গন্ধে,
মিষ্টি ছোঁয়ার দোদুল দোলা
রোদের মিহিন ছন্দে।

বালি হাঁসের পাখায় পাখায়
হিম কুয়াশা শিশির মাখায়
সবুজ পাতা গাছের শাখায়
নাচে কী আনন্দে।

জুঁই কামিনী ধুতরা ছাতিম
পুলক জাগায় অঙ্গে,
নদীর চরে কাশ ফুলেরা
নাচে হাওয়ার সঙ্গে।

জোনাক আলোর পরশ ছড়ায়
প্রকৃতি বেশ মায়ায় জড়ায়
আলতো কদম ফেলে শরৎ
এলো সোনার বঙ্গে।

এখন শরৎকাল
আবদুল ওহাব আজাদ

শিউলী ঝরা ভোর,
আকাশ মেঘে ঢাকা,
এক পশলা বৃষ্টি বড়জোর
তার পরে মেঘ ফাঁকা।
দেখো যদি গাছে পাকা তাল।
বুঝতে হবেÑ এখন শরৎকাল।

বনে যদি ফোটে কাশফুল।
চিনতে শরৎ করোনাকো ভুল।
নদী যদি হয় কভু উত্তাল।
বুঝতে হবে এখন শরৎকাল।

ঘুঘু যদি ডাকে গাছে গাছে।
সেই ডাকেতে শরৎ মিশে আছে।
কাদা জলে সময়টা হয় যদি বেহাল।
বুঝতে হবে এখন শরৎকাল।

বৃষ্টি এলে
বাতেন বাহার

বৃষ্টি এলে দৃষ্টি থামে চোখের
কান্না ভেজা কণ্ঠ শুনি শোকের।
ভীষণ কাঁদে বৃক্ষরাজি লতা
জড় ও অজড় বলে গোপন কথা।
যে সব কথা লেখার ভাষা নেই
লিখতে কলম ভাঙে অনেকেই।

বৃষ্টি এলে মুষল ধারে রাতে
মন তটিনী মেঘের সাথে মাতে।
কত্তো কথা হয়রে জমা মনে
যায় হারিয়ে সহজে পর ক্ষণে।
যার ছবিটা আঁকার তুলি নাইÑ
অনুভবেই পদ্য লিখে যাই।

মনের পশু
ইউসুফ আল আজাদ

মনের ভিতর পশু আছে
সবাই শুনে যাও,
মনের পশু ধরে এবার
জবাই করে নাও।
একটা পশু মনের ভিতর
বাস করে নিত্য,
সেই পশুটা জবাই করে
সাফ করে নাও।
মনের পশু জবাই কর
তবেই হবে ঈদ,
মনের পশু জবাই হলে
পাক হবে হৃদ।
বনের পশু কেউ ধরো না
শুন ভাই সবাই
মনের পশু ধরে নিয়ে
এবার করো জবাই।

দুষ্টু খোকা
সুফিয়ান আহমদ চৌধুরী

ইসকুলেতে যায় না ভুলু
ইঁচড়ে পাকা,
দুষ্টুমিতে সারাক্ষণ
ব্যস্ত থাকা।

খেলার মাঠে বিকেল বেলা
হাঁকায় ছক্কা
কম বয়সে পাকা চুল
নেইতো রক্ষা।

আমতলা যায়
চুষতে যে আম,
দুষ্টুমিতে হতচ্ছড়া
ছড়ায় যে নাম।

কম বয়সেই বুদ্ধিমান সে
ভাবনা বাড়ে,
টিচার শাসায় কাসের ভেতর
ঘাড়টা ধরে।

ভুলু কাটায় এমনিভাবে
ঘুরেই বুঝি
মা ও বাবা শান্তি খুঁজে
দু’চোখ বুজি।

বাদলা দিনে
ইকবাল কবীর মোহন

বাদলা দিনে মেঘের ডাকে
জেগে ওঠে বন
বৃষ্টি নামার ছন্দে নাচে
খোকা-খুকুর মন।
এমন মজার বাদলা দিনে
পাখিরা চুপচাপ
সূর্য মামা উঁকি দিয়ে
ছড়ায় মিষ্টি তাপ।
ফুলের বনে বৃষ্টি নামে
ভাসে ফুলের ঘ্রাণ
বন-বনানীর শুকনো ডালে
সবুজ পাতার প্রাণ।
বাদলা দিনের বৃষ্টি জীবন
বৃষ্টি আবার শোকের
দুঃখ আনে ঘরে ঘরে
হাজার হাজার লোকের।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.