স্মার্টফোন বাজার

বিশ্বের শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতাদের চারটিই চীনের
চীনা ব্র্যান্ডে সয়লাব হয়ে গেছে স্মার্টফোনের বিশ্ববাজার। বাজার গবেষণা ও বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠান কাউন্টার পয়েন্টের সাম্প্রতিক তথ্য মতে, বিশ্বের সবচেয়ে বড় সাতটি স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানির মধ্যে চারটিই চীনভিত্তিক। বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারের ৪৮ শতাংশই দখলে নিয়েছে চীনা ব্র্যান্ডগুলো। এসব ব্র্যান্ড ডিভাইস বাজারে একক শাসন প্রতিষ্ঠা করতে কাজ করছে
স্যামসাং
২০১৭ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারের ২২ শতাংশ দখলে নিয়ে শীর্ষ অবস্থান ধরে রেখেছে স্যামসাং। এশিয়া বাদে বিশ্বের অন্য বাজারগুলোয় শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে এশিয়ায় অপো, হুয়াওয়ে ও ভিভোর পর চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে স্যামসাং।
অ্যাপল
বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে অ্যাপলের দখল দাঁড়িয়েছে স্যামসাংয়ের অর্ধেক বা ১১ শতাংশ। জনপ্রিয় আইফোন ডিভাইস নির্মাতা এ প্রতিষ্ঠান উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপের বাজারে সরবরাহ বিবেচনায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে।
হুয়াওয়ে
চলতি বছরের এপ্রিল-জুন প্রান্তিকে বাজার দখলের দিক থেকে অ্যাপলের সমপর্যায়ে পৌঁছেছে চীনভিত্তিক হুয়াওয়ে। এর দখল দাঁড়িয়েছে ১১ শতাংশ। ডিভাইস সরবরাহ বিবেচনায় এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকার বাজারে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে হুয়াওয়ে। ইউরোপ ও ল্যাটিন আমেরিকায় অবস্থান ৩ ও ৪ নম্বরে।
অপো
বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে অপোর দখল দাঁড়িয়েছে ৮ শতাংশ। এশিয়ায় স্মার্টফোন বাজারের ১৫ শতাংশ দখলে নিয়ে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে এই প্রতিষ্ঠানটি। বিশ্বের অন্য বাজারগুলোয় শীর্ষ পাঁচে জায়গা করে নিতে পারেনি চীনভিত্তিক অপো।
ভিভো
এপ্রিল-জুন প্রান্তিকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে সরবরাহ বিবেচনায় ভিভোর দখল দাঁড়িয়েছে ৭ শতাংশ। এ ক্ষেত্রে সিস্টার কোম্পানি অপোর চেয়ে ১ শতাংশ পিছিয়ে রয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এশিয়ার বাজারে এর দখল দাঁড়িয়েছে ১৩ শতাংশ।
শাওমি
ডিভাইস সরবরাহ বিবেচনায় স্মার্টফোনের বিশ্ববাজারে শাওমির দখল দাঁড়িয়েছে ৬ শতাংশ। শুধু এশিয়ার বাজারেই অপো, হুয়াওয়ে, ভিভো ও স্যামসাংয়ের পর শীর্ষ পাঁচে জায়গা করে নিতে পেরেছে চীনা এ ব্র্যান্ড।
এলজি
বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারের ৪ শতাংশ দখলে নিয়ে সবচেয়ে বড় সাত স্মার্টফোন কোম্পানির তালিকায় স্থান করে নিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক এলজি। দ্বিতীয় প্রান্তিকে স্মার্টফোনের গুরুত্বপূর্ণ বাজার ইউরোপ ও ল্যাটিন আমেরিকায় এ প্রতিষ্ঠানটির দখল দাঁড়িয়েছে ৩ ও ১০ শতাংশ।

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.