মডেল : অবাক ও রাজ পোশাক : ইজি ছবি : শাহিন রেজা
মডেল : অবাক ও রাজ পোশাক : ইজি ছবি : শাহিন রেজা

স্টাইলিশ পোলোশার্ট

এ কে রাসেল


এক দশক ধরে আধিপত্য বিস্তার করে চলা টি-শার্টের ফ্যাশনের সাথে পাল্লা দিয়ে চলছে পোলোশার্ট। গরম এলেই এর গতি যেন আরো বেড়ে চলে। গার্মেন্ট শিল্পের প্রসারণ এবং দেশীয় পোশাক শিল্পের জাদুর পরশ এখানে রয়েছে। পোলোশার্ট এখন পোশাক সংস্কৃতিতে প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। বলা হয়, টি-শার্টের ব্যাপারে ছেলেরা বেশ চুজি, সবসময় চেষ্টা করে টি-শার্টে নতুন কিছু। একই কথা খাটে পোলো টি-শার্টের ক্ষেত্রেও।
তরুণদের একই সাথে স্টাইলিশ এলিগ্যান্ট ও কমফোর্টেবল পোশাক বলতে প্রথমে আসে যার নাম, সেটি হলো পোলোশার্ট। ক্যাজুয়াল ও ফর্মাল দুইভাবেই পরা যায় পোলোশার্ট। একসময় আমদানি করা পোলোশার্টের বাজার ছিল একচেটিয়া। এখন সময় বদলে গেছে। নামী-দামি নানা দেশীয় ব্র্যান্ড এখন টি শার্ট প্রস্তুত করছে। পোলো শার্টের বৈচিত্র্য এর প্যাটার্নে। সেই কারণে ছেলেরা গরমের দিনগুলোতে সজীব ও স্মার্ট লুক ফুটিয়ে তুলতে বেছে নেয় পোলোশার্ট। পোলোশার্টের মূল আকর্ষণ এর রঙের ব্যবহারে। বৈচিত্র্যপূর্ণ রঙ ব্যবহারের মাধ্যমেই মূলত পোলোশার্ট আকর্ষণীয় করে তোলা হয়।
গরমের দিনে আরাম দিতে পোলোশার্ট অদ্বিতীয়। এ সময়ের ফ্যাশন হিসেবে আরামের তরুণ প্রজন্মের কাছে গ্যাবাডিন কিংবা জিন্সের সাথে বর্তমানে পোলো টি-শার্ট প্রচুর জনপ্রিয়। পোলো টি-শার্ট আসলে টি-শার্টেই আরেক প্যাটার্ন। অর্থাৎ টি-শার্ট যেমন রাউন্ড নেক ঠিক তেমনি পোলো টি-শার্টের বডি প্যাটার্ন টি-শার্টের মতো হলেও এর সাথে যুক্ত থাকে কলার, যা ফ্যাশনে দিয়েছে নতুন মাত্রা।
পোলোশার্টের চাহিদা এখন সার্বজনীন। সব বয়সী মানুষ পরতে পারে। শুধু ব্যক্তিত্ব আর রুচি অনুযায়ী নির্দিষ্ট পোলোশার্ট বাছাই করে নিলেই হলো। ব্র্যান্ড ভেদে পোলোশার্টের কাপড় ও বোতামের ডিজাইনে রয়েছে ভিন্নতা। ডিজাইনে স্ট্রাইপ ও এক কালার যেমন রয়েছে, তেমনি কোনো কোনো পোলোশার্টে তিন থেকে চারটি বোতামও দেখা যায়। আবার কোনোটিতে দুই বা তিনটি বোতাম। বোতামবিহীন পোলোশার্টের কদরও এখন বেশ। ফ্যাশনের জন্য অল্প বোতামের পোলোর চাহিদাই বেশি বাজারে। বোতামের ডিজাইনেও আছে বৈচিত্র্য। মেটালের তৈরি বোতাম পোলোশার্টে নিয়ে এসেছে ভিন্নমাত্রা। এখন বোতামবিহীন পোলোশার্টের কদরও কম নয়। হালকা গড়নের হাতে রাবার ছাড়া কাফ পোলো বেশি মানানসই। যে বয়স বা গড়নের শরীর হোক না কেন, ঢিলেঢালা শার্ট না পরে তরুণেরা সবাই বেছে নিচ্ছে ফিট কিংবা সেমি ফিট পোলোশার্ট। ফ্যাশন হাউজ ইজির পরিচালক তৌহিদ চৌধুরী বলেন, সুতি ও লিনেন কাপড়ের পোলোশার্ট বেশি চলছে। তা ছাড়া ব্যায়াম করা পেশিবহুল বাহু যাদের, তারা হাতায় রাবার দেয়া কাফের পোলো টি-শার্ট বেছে নিতে পারেন। আকর্ষণীয় দেখাবে। ক্রেতারাও গরমের কথা ভেবেই বেছে নিচ্ছেন এমন কাপড়। নতুনত্ব আনতে গলা ও কাঁধে যোগ করা হচ্ছে বাড়তি নকশা। জিনসের বা গ্যাবাডিন প্যান্টের সঙ্গে মানিয়ে যায় এটি।
এক রঙের পোলোশার্টের পাশাপাশি চলছে স্ট্রাইপ পোলোশার্ট। কাপড় ও রঙে বৈচিত্র্যের সম্মিলন ঘটেছে ফ্যাশন হাউজগুলোতে। এখন একরঙা পোলোশার্ট যেমন চলছে, তেমনি স্টাইপ পোলোশার্টও অনেকে পছন্দ করছেন। রঙের ক্ষেত্রে গোলাপি, নীল, সাদা, লেবু, হলুদ, কমলা, ছাই বা সবুজ চলছে। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ছাত্র মেহেদী ইকবাল ইভান বলেন, পোলো টি-শার্টের সাথে মজাদার কোটস সহজেই মন কেড়ে নিচ্ছে আমাদের।’
ইজি, ক্যাটস আই, এক্সট্যাসি, ইয়েলো, জেন্টল পার্ক, আমবার, সেইলর, মেনজ ক্লাব, আর্টিস্টি, রিচম্যানসহ প্রায় সব ফ্যাশন হাউজেই পোলো টি-শার্ট পাওয়া যায়। এ ছাড়া ঘুরে ঘুরে কিনতে চাইলে, বসুন্ধরা, যমুনা ফিউচার পার্ক, নিউ মার্কেট, এলিফ্যান্ট রোড, নূরজাহান মার্কেটসহ পলওয়েলে মিলবে পোলোশার্ট। ব্র্যান্ডভেদে দামের তারতম্য হয়। ৩৫০ টাকা থেকে শুরু করে দুই হাজার টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবেন পছন্দের পোলোশার্ট।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.