ইকুয়েডরের বিরুদ্ধে ম্যাচে মেসি
ইকুয়েডরের বিরুদ্ধে ম্যাচে মেসি

মেসির রেকর্ড (ভিডিও)

নয়া দিগন্ত অনলাইন

সব শঙ্কা কাটিয়ে ফুটবল জাদুকর মেসিই তার দেশ আর্জেন্টিনাকে সরাসরি নিয়ে গেলেন রাশিয়া বিশ্বকাপে। বাঁচা-মরার ম্যাচে জ্বলে উঠলেন তিনি। করলেন হ্যাটট্রিক। আর সেই সাথে তার ক্যারিয়ারে যোগ হলো আরেকটি রেকর্ড। ল্যাটিন আমেরিকা অঞ্চলে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনি। অবশ্য তার এ রেকর্ড বেশি সময় একক থাকেনি। পরে তাতে ভাগ বসিয়ে দেন উরুগুয়ের তারকা লুইস সুয়ারেজ।

ম্যাচটি ছিল সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২ হাজার ৮৫০ মিটার উঁচুতে। যেখানে ২০০১ সালের পর জেতেনি আর্জেন্টিনা। অসাধ্য সাধনের ভার ছিল অধিনায়ক আর দলের সেরা খেলোয়াড় মেসির কাঁধেই। কিন্তু প্রথম ৩৮ সেকেন্ডেই ‘ঝড়ে’র কবলে পড়তে হয় মেসিদের। বিপক্ষ দলের গোলে যখন অনিশ্চিত হয়ে পড়ে তাদের বিশ্বকাপ যাত্রা তখনই ফুটবল জাদুকর মেসি তার জাদু দেখাতে শুরু করেন।

বিশ্বকাপ ভাগ্য নিজেদের হাতে রাখতে হলে আর্জেন্টিনার তখন কমপক্ষে দুই গোল করতে হতো। দ্বাদশ মিনিটে বাঁয়ে আনহেল দি মারিয়াকে বল বাড়িয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন বার্সেলোনার ফরোয়ার্ড। কাটব্যাকে বল ফেরত পেয়ে প্রথম ছোঁয়াতেই বাঁ পায়ের টোকায় জালে পাঠান তিনি। উদযাপন করেননি তেমন, জাল থেকে বল কুড়িয়ে সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ দিতে দিতে ছুটলেন মাঝমাঠে। আর এর মাধ্যমে তিনি তার সতীর্থ হারনান ক্রেসপো ও উরুগুয়ে তারকা লুইস সুয়ারেজের ১৯ গোলের রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলেন।

আট মিনিট পর আরেকটি দুর্দান্ত গোলে আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে দেন মেসি। দি মারিয়ার বাড়ানো বল বিপদমুক্ত করতে পারেনি প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়। মেসি বল পেয়ে ডি-বক্সে ঢুকে ছুটে আসা দুই ডিফেন্ডারের বাধা এড়িয়ে জোরালো শটে উপরের বাঁ-কোণ দিয়ে জালে পাঠান। আর এতে ল্যাটিন আমেরিকা অঞ্চলে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে সর্বোচ্চ গোলের নতুন রেকর্ড গড়েন মেসি।

বিরতির পর শুরুর দিকে বার বার আক্রমণে উঠে অতিথিদের চাপে রেখেছিল ইকুয়েডর। তবে ৬২তম মিনিটে হ্যাটট্রিক করে যেন সব অনিশ্চয়তার অবসান ঘটালেন মেসি।

রেকর্ডের খেলা এখানেই শেষ হয়নি। অপর খেলায় বলিভিয়ার বিরুদ্ধে উরুগুয়ের তারকা লুইস সুয়ারেজ দুই গোল করে আবার ছুঁয়ে ফেলেন মেসির রেকর্ড।

প্রথম গোলে মেসির কোনো উল্লাস দেখা না গেলেও খেলা শেষে তার উল্লাসের কমতি ছিল না। বুক দিয়ে বল নামিয়েছিলেন প্রায় ৪০ গজ দূরে। বল নিয়ে এগিয়ে পায়ের জাদু আর ক্ষিপ্রতায় একজনকে ফাঁকি দিলেন। আরেকজন বাধা দিতে আসতেই একটু এগিয়ে থাকা গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে বল পাঠালেন জালে। এবার সতীর্থদের সঙ্গে মেতে উঠলেন বাঁধনহারা উল্লাসে।

ইকুয়েডরের বিপক্ষে জয়ই শেষ কথা ছিল না আর্জেন্টিনার। তাকিয়ে থাকতে হতো ব্রাজিল-চিলি ম্যাচের দিকে। নিজেদের মাঠে ব্রাজিল চিলিকে ৩-০ গোলে পরাজিত করলো। তাতেই পয়েন্ট টেবিলে ৬ নম্বর থেকে এক লাফে আর্জেন্টিনা চলে এলো তিন নম্বরে এবং সরাসরি রাশিয়া বিশ্বকাপে ঠাঁই করে নিলো মেসির দেশ।

ব্রাজিল আগেই বিশ্বকাপ খেলা নিশ্চিত করে নিয়েছিল। বাছাই পর্বে দ্বিতীয় হয়ে সুয়ারেজের উরুগুয়ে, তৃতীয় হয়ে আর্জেন্টিনা, চতুর্থ হয়ে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত করলো কলম্বিয়া। পেরু সুযোগ পেলো প্লে-অফ খেলার। দু’বারের কোপা আমেরিকা জয়ী চিলিকে বিশ্বকাপ থেকেই ছিটকে পড়তে হলো।

বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ নিশ্চিত হলো যাদের
ছয়টি কনফেডারেশনস থেকে বাছাইপর্বের ধাপ পেরিয়ে মোট ৩১টি দল জায়গা করে নেবে ২০১৮ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে। স্বাগতিক হিসেবে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলবে রাশিয়া। বাছাইপর্বের এ পথ পর্যন্ত আসুন দেখে নিই কোন কোন দল নিশ্চিত করেছে বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্ব:

এশিয়া (এএফসি): ইরান, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও সৌদি আরব।

ইউরোপ (উয়েফা): বেলজিয়াম, ইংল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, আইসল্যান্ড, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, রাশিয়া, সার্বিয়া ও স্পেন।

আফ্রিকা (সিএএফ): মিসর ও নাইজেরিয়া।

কনকাকাফ (উত্তর ও মধ্য আমেরিকা এবং ক্যারিবিয়ান): কোস্টারিকা, মেক্সিকো ও পানামা।

দক্ষিণ আমেরিকা (কনমেবল): ব্রাজিল, উরুগুয়ে, আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়া।

ভিডিওতে দেখুন মেসির গতকালের নৈপুণ্য :

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.