সাতকানিয়ায় ঋণের দায়ে সাধু দম্পতির আত্মহত্যা

সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ঋণের দায়ে সাধু-সাধ্বী বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। তারা হলেনÑ স্বপন দে (৬০) ও তার স্ত্রী চিনু রানী দে (৪৮)। গত সোমবার রাতের কোনো এক সময় তারা উপজেলার পুরানগড় ইউনিয়নের ফকিরখীল গ্রামের মা মগেদ্বশরি মন্দিরের পাশের একটি কক্ষে তারা আত্মহত্যা করেন। গত মঙ্গলবার সকালে পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে।
পুলিশ জানায়, সাধু স্বপন স্ত্রীকে নিয়ে গত ১০ বছর আগে মহালছড়ি এলাকা থেকে সাতকানিয়ার পুরানগড় ইউনিয়নের ফকিরখীল এলাকায় বসবাস শুরু করেন। তার পৈতৃক বাড়ি লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বার চৌধুরী দীঘি এলাকায়। স্বপন সস্ত্রীক পুরানগড়ে এসে নিজেদের সাধু-সাধ্বী হিসেবে পরিচয় দেন। এলাকায় আসার পর তিনি একটি মন্দির প্রতিষ্ঠা করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন এবং লোকজনের অনুদানের টাকায় মা মগেদ্বশরি নামে একটি মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন। ওই মন্দিরের পাশে একটি কক্ষে তারা দুইজন বসবাস করতেন।
ধারণা করা হচ্ছে, গত সোমবার রাতের যেকোনো সময় তারা বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। এলাকার লোকজন মন্দিরে পূজা দিতে গিয়ে সাধু-সাধ্বীর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসীকে খবর দেয়। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাছানুজ্জামান মোল্লা ও সাতকানিয়া থানার ওসি রফিক হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
সাতকানিয়া থানার ওসি রফিক হোসেন জানান, সাধু দম্পতি লোকজনের কাছ থেকে অনেক টাকা ঋণ নিয়েছিলেন। সাধু দম্পতির মৃত্যুর খবর শুনে পাওনাদারেরা মন্দিরে এসে ভিড় জমান। লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, কমপক্ষে ১০-১২ লাখ টাকা ঋণ রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে দেনার দায়ে তারা বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানা যাবে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.