খালাতো ভাইয়ের প্রতারণায় নিঃস্ব যুবক
খালাতো ভাইয়ের প্রতারণায় নিঃস্ব যুবক

খালাতো ভাইয়ের প্রতারণায় নিঃস্ব যুবক

বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) সংবাদদাতা

আপন খালাতো ভাইয়ের প্রতারণার শিকার হয়ে দুঃসহ জীবন যাপন শেষে কাতার থেকে নিঃস্ব হয়ে দেশে ফিরেছে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের অলংকারপুর গ্রামের যুবক মেহেদী হাসান রানা।

প্রতারণার শিকার মেহেদী হাসান রানার বাবা জাহিদুর রহিম মোল্লা জানান, মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার গোয়ালপাড়া গ্রামের মৃত সিদ্দিক মোল্লার ছেলে সৌদি প্রবাসী সাইফুল ইসলাম চাঁদ, তার স্ত্রী মিতা ও শ্বশুর ফজলুল করিম মিলে আত্মীয়তার সুবাদে তার ছেলে মেহেদী হাসান রানাকে ভালো বেতনে মালয়েশিয়া পাঠানোর প্রস্তাব দেয়। তাদের প্রস্তাবে সহজ-সরল বিশ্বাসে নগদ ৪লক্ষ টাকা প্রদান করেন। দীর্ঘদিন হলেও মালয়েশিয়া পাঠাতে ব্যর্থ হলে টাকা ফেরতের জন্য চাপ সৃষ্টি করলে পরে আরো ভালো বেতন ও ভালো কাজের কথা বলে কাতার পাঠানোর প্রস্তাব দেন।

সে অনুযায়ী ২০১৭ সালের ৯ মার্চ ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে কাতার পাঠান। কাতারে পৌঁছে কোন কাজ না পেয়ে একের পর এক মালিকের নিকট হস্তান্তর হতে থাকে। সেখানে খেয়ে না খেয়ে দুঃসহ জীবন যাপন করতে থাকে। অতিকষ্টে ফোনে বাবার নিকট বাঁচার আকুতি জানালে বিভিন্ন ভাবে লোকমারফত প্রায় ১লক্ষ টাকা প্রদান করেন। পরে কাতারে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে জেল হাজতে থাকে। ১১দিন জেল খাটার পর তাকে গত ১০ অক্টোবর বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়। দেশে ফেরার পর টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করলে উল্টো নানা ধরনের হুমকি প্রদান করছে।

প্রতারিত যুবক মেহেদী হাসান রানা জানায়, তার আপন খালাতো ভাইয়ের প্রস্তাবে সরল বিশ্বাসে সে কাতার যায়। সেখানে যাওয়ার পর তাকেসহ ১০-১৫ জনকে একটি ছোট রুমে থাকতে দেয়। প্রচন্ড গরম ও খেয়ে না খেয়ে থাকতে হয়। বাড়ি থেকে টাকা পাঠালে খাবার জোটে নয় না খেয়ে থাকতে হয়। এভাবে অসহ্য কষ্ট করার পর পুলিশের হাতে আটক হয়ে দেশে ফিরে আসি নিঃস্ব হয়ে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.