কুশনে সাজান অন্দর : অন্দর সজ্জা

ঝরনা রহমান

বিভিন্ন সাইজের কুশন
বাজারে বিভিন্ন সাইজের কুশন পাওয়া যায়। বাড়ির বিভিন্ন জায়গায় ব্যবহার করুন বিভিন্ন সাইজের কুশন। সোফা সেটে একসাথে ব্যবহার করতে পারে ছোট ও বড় সাইজের কুশন। ডিভানের ওপর রাখুন লম্বাটে সাইজের কুশন। ছোটদের ঘরে রাখতে পারেন বিভিন্ন ফল, ফুল বা কমিকস আকৃতির কুশন। বড় কুশন রেখে ফ্লোরে বসার ব্যবস্থা করলেও মন্দ হবে না।
ডিজাইন বৈচিত্র্য
কুশনের ক্ষেত্রে ডিজাইন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিভিন্ন ডিজাইনের কুশন বাজারে পাওয়া যায়।
ঘরের অন্য উপাদানের সাথে মিলিয়ে বাছাই করুন ঘরের কুশন।
যদি ঘরের সাজ সাধারণ হয় তাহলে বাছাই করুন সাধারণ ডিজাইনের কুশন কভার। আর যদি জমকালো লুক আনতে চান তাহলে বিভিন্ন ধরনের অ্যামব্রয়ডারি, জারদৌসি কাজ করা বা ঝালর লেস বসানো কুশন কভার ব্যবহার করুন।
ফেব্রিকসে বৈচিত্র্য
সুতি, নেট, গ্রামীণ চেক প্রভৃতি কাপড়ের কুশন কভার গরমের দিনগুলোয় ব্যবহার করুন। এসব ফেব্রিক গরমে যেমন প্রশান্তিদায়ক, তেমনি ঘরে আনবে স্নিগ্ধ পরিবেশ। অন্য দিকে ভেলভেট, সার্টিনজাতীয় কাপড় শীতের সময় কুশনে ব্যবহার করুন। এতে ঘরে একটা ফেস্টিভ আমেজ তৈরি হবে।
রঙের ব্যবহার
কুশন কভার রঙের ব্যবহারের মধ্য দিয়েও করে তুলতে পারেন সৃজনশীল। তবে আভিজাত্য ফুটিয়ে তুলতে অফহোয়াইট ক্রিম, বাদামি, সিলভার বা গোল্ডেন কালারের ফেব্রিক ব্যবহার করতে পারেন। আবার প্রকৃতির প্রাধান্য বোঝাতে সবুজ বা নীল রঙের কুশনও ব্যবহার করতে পারেন।
প্রকৃতির সাথে মিল রাখুন
ঋতু বদলের সাথে সাথে কুশন কভারেও পড়তে পারে এর ছোঁয়া। বসন্তে রাখতে পারেন ফুলের নকশার কুশন। শীতে রাখুন উলের নকশা, আবার বর্ষায় রাখতে পারেন নীল কুশনের সাথে আকাশির মিশেল। এভাবে নিজের সৃজনশীলতায় কুশনও হয়ে উঠতে পারে অন্দর সাজের একটা অংশ।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.