টাকা জমা দেয়ার শর্তে এমপি শওকতের জামিন স্থগিতাদেশের মেয়াদ বৃদ্ধি

নিজস্ব প্রতিবেদক

নীলফামারী-৪ আসনের এমপি মো. শওকত চৌধুরীর জামিন ধরে রাখতে ২৫ কোটি জমা দেয়ার যে শর্ত হাইকোর্ট দিয়েছিলেন, তার স্থগিতাদেশের মেয়াদ আরো তিন সপ্তাহ বৃদ্ধি করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সেইসাথে এই সংসদ সদস্যকে ওই সময়ের মধ্যে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের আবেদন (লিভ টু আপিল) করতে বলা হয়েছে।

দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ আজ রোববার এ আদেশ দেন।

মো. শওকতের আইনজীবী নুরুল ইসলাম সুজন সাংবাদিকদের বলেন, আমরা হাইকোর্টের আদেশের কপি এখনও পাইনি। এজন্য সময় আবেদন করেছি। আদালত তা মঞ্জুর করেছেন। পাশাপাশি আগামী ৩ ডিসেম্বর এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২২ অক্টোবর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট দ্বৈত বেঞ্চ ৫০ দিনের মধ্যে ২৫ কোটি টাকা বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকে জমা না দিলে এমপি শওকতের জামিন বাতিল হবে বলে রায় দিয়েছিলেন। এরপর শওকতের আবেদনের পরিপেক্ষিতে গত ২৯ অক্টোবর হাইকোর্টের আদেশ দুই সপ্তাহ স্থগিত করেন আপিল বিভাগ। আজ তা আরো তিন সপ্তাহ সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে।

ঋণ জালিয়াতির অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন ২০১৬ সালের ৮ ও ১০ মে শওকত চৌধুরীসহ নয়জনের বিরুদ্ধে বংশাল থানায় দুটি মামলা করে। এর মধ্যে এক মামলায় ৯৩ কোটি ৩৬ লাখ ২০ হাজার ২১৩ টাকা এবং আরেক মামলায় ৮২ লাখ ৮৯ হাজার ৮১৫ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়।

এ দুই মামলায় গত বছর অগাস্টে হাইকোর্ট থেকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন নেন শওকত চৌধুরী। পরে ঢাকার বিশেষ জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে আবারও জামিন পান। এ অবস্থায় ওই দুই মামলার অপর দুই আসামি আসাদুজ্জামান ও হাবিবুল গণি জামিনের আবেদন করলে গত বছর ২৪ নভেম্বর তার শুনানিতে হাইকোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে রুল জারি করেন।

মো. শওকত চৌধুরীকে নিম্ন আদালতের দেয়া জামিন কেন বাতিল করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয় ওই রুলে। ওই রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে আদালত শওকতকে জামিন বাঁচানোর জন্য টাকা জমা দেয়ার শর্ত ঠিক করে রায় দেন আদালত।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.