নবীনগরে ঘেরমালিকদের বিরুদ্ধে মামলা হলেও দখলমুক্ত হয়নি পাগলা নদী

মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে নৌকাডুবিতে দুই জেএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় পাগলা নদীর ৩৯টি ঘেরমালিকের বিরুদ্ধে মামলা হলেও এখনো দখলমুক্ত হয়নি নদীটি। ফলে স্বাভাবিক কারণেই নৌ চলাচলে বিঘœ ঘটছে। তাই ঝুঁকি নিয়েই নৌ পারাপার হচ্ছেন এলাকাবাসী।
জানা যায়, নদীতে মাছের অভয়াশ্রম তৈরি করতে কলমি লতার দামের নিচে ডালপালার ঝাটি ফেলে এবং বাঁশের খুঁটি দিয়ে এসব ঘের তৈরি করা হয়। এসব অভয়াশ্রম করার ব্যাপারে মৎস্য অধিদফতরের নির্ধারিত বিধিমালা থাকলেও উদ্যোক্তারা তা মেনে চলছেন না। যত্রতত্র এসব অবৈধ ঘের স্থাপনের কারণে শুধু নৌ চলাচলই বিঘিœত হচ্ছে না বরং পানির নিচে অপরিকল্পিতভাবে প্রোথিত বাঁশের খুঁটি ও ডালপালার আঘাতে ঘটছে নৌ দুর্ঘটনা। সম্প্রতি জেএসসি পরীক্ষার্থীদের নিয়ে মর্মান্তিক নৌ দুর্ঘটনার এটি অন্যতম কারণ বলে প্রাথমিক তদন্তে প্রতীয়মান হয়েছে।
এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ৬ নভেম্বর বীরগাঁও ইউনিয়ন উপসহকারী ভূমি অফিসার মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বাদি হয়ে নবীনগর থানায় ৩৯টি ঘের মালিকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ব্যাপারে নবীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সালেহীন তানভীর গাজী জানান, ঘেরের কারণে নৌপথে দুর্ঘটনা ঘটছে। নৌ দুর্ঘটনায় জেএসসি পরীক্ষার্থী সোনিয়া ও নাদিরার মর্মান্তিক মৃত্যুর অন্যতম কারণ এসব ঘের। ইউএনও আরো বলেন, ঘের মালিকদের অপতৎপরতার কারণে নদী যেমন দখল হয়ে সরু হয়ে গেছে, তেমনি নৌপথে চলাচলেও ঝুঁকি বেড়ে গেছে। সামনে শীত আসছে। ঘন কুয়াশার কারণে নৌ দুর্ঘটনা বাড়তে পারে।
উপজেলা মৎস্য অফিসার জানান, মৎস্য অভয়াশ্রমের একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা রয়েছে। নৌ চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি করে ঘের স্থাপনের আইনগত কোনো বৈধতা নেই।
এ দিকে মামলায় অভিযুক্ত ঘের মালিকদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে বলে নবীনগর থানা সূত্র জানিয়েছে। নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আসলাম সিকদার জানান, মাইকিং করে ঘের মালিকদের ঘের সরিয়ে নিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু তারা তা করেননি। এ অবস্থায় ৩৯ ঘের মালিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলার অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
পরীক্ষার্থীদের নিয়ে নৌ দুর্ঘটনার তদন্ত কমিটির প্রধান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, প্রাথমিক তদন্তে ঘের স্থাপনের মাধ্যমে নৌ চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির বিষয়টি প্রমাণিত হয়েছে।
প্রসঙ্গত, গত ১ নভেম্বর নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর আব্দুল জব্বার উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে আসার পথে একই উপজেলার বীরগাঁও স্কুল অ্যান্ড কলেজের অর্ধশত জেএসসি পরীক্ষার্থী নিয়ে পাগলা নদীতে একটি নৌকাডুবে যায়। এতে ঘটনাস্থলে নাদিরা ও সোনিয়া নামে দুই জেএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু হয়।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.