সিরিয়ায় বিমান হামলায় নিহত ৫৩

রয়টার্স ও আলজাজিরা

সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত একটি শহরের একটি মার্কেটে বিমান হামলায় অন্তত ৫৩ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস। সোমবার আলেপ্পো প্রদেশের আতারিব শহরে তিনবার বিমান হামলা চালানো হয় বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক গোষ্ঠীটি।
আতারিব শহরটি তুরস্ক, রাশিয়া ও ইরান ঘোষিত ‘ডি-এস্কেলেশন’ জোনের মধ্যে পড়েছে। ওই এলাকায় সহিংসতা হ্রাস করার লক্ষ্যে এই জোন প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। সিরিয়া না কি রাশিয়ার যুদ্ধবিমান থেকে এ হামলা চালানো হয়েছে, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। হামলায় বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়েছে ও কয়েকজন এখনো নিখোঁজ রয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা গেছে, অনেক ভবন ও ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে। রাস্তায় রক্তাক্ত লাশ ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে।
সিরিয়া গৃহযুদ্ধের শান্তিপূর্ণ সমাধান নিয়ে আস্তানায় বহুপক্ষীয় আলোচনার দুই সপ্তাহেরও কম সময়ে আতারিব শহরে এই বিমান হামলা চালানো হলো। আস্তানা শান্তি আলোচনায় অংশ নিয়ে তুরস্ক, রাশিয়া ও ইরান সিরিয়ার চারটি শহরে ‘নো-ফ্লাই জোন’ কার্যকর করার ঘোষণা দেয়। সিরিয়ার খুবই গুরুত্বপূর্ণ চার শহর ইদলিব, হোমস, লাটাকিয়া ও হামাÑ এই চার শহরে নো-ফ্লাই জোন কার্যকরের ঘোষণা দেয়া হয়। শর্তানুযায়ী, প্রায় ২৫ লাখ লোকের ওই চার শহরে বিমান হামলাসহ সব ধরনের সংঘর্ষ আগামী ছয় মাসের জন্য বন্ধ রাখার কথা।
আলোচনায় অগ্রগতি ছাড়া সরতে চায় না যুক্তরাষ্ট্র
এ দিকে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম ম্যাটিস বলেছেন, জাতিসঙ্ঘ শান্তি প্রক্রিয়ার আলোচনায় আরো অগ্রগতি না হওয়া পর্যন্ত মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট সিরিয়া ও ইরাকে ইসলামিক স্টেট গ্রুপের বিরুদ্ধে তাদের লড়াই অব্যাহত রাখবে। সোমবার তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘জেনেভা শান্তি প্রক্রিয়ার অগ্রগতি না হওয়া পর্যন্ত আমরা এখনই সেখান থেকে সরে আসছি না।’ এই সাবেক মেরিন জেনারেল আরো বলেন, এ জোটের লক্ষ্য ইসলামিক স্টেট গ্রুপের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়া এবং সিরীয় গৃহযুদ্ধ অবসানের একটি কূটনৈতিক সমাধান খুঁজে বের করা। তিনি বলেন, ‘এ সঙ্কটের কূটনৈতিক সমাধানের জন্য আমরা সুনির্দিষ্ট কিছু শর্ত নির্ধারণ করতে যাচ্ছি।’ সিরিয়া সঙ্ঘাত নিরসনে ‘সামরিক পদক্ষেপের মধ্যে কোনো সমাধান নেই’ শনিবার যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার এক যৌথ বিবৃতিতে এমন কথা বলার পর তিনি এ মন্তব্য করেন। সিরিয়াবিষয়ক জাতিসঙ্ঘ বিশেষ দূত স্টাফান ডি মিস্তুরার মধ্যস্থতায় আগামী ২৮ নভেম্বর থেকে নতুন দফার শান্তি আলোচনা শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। ২০১১ সালের মার্চ থেকে এ সঙ্ঘাত শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত সিরিয়ায় ৩ লাখ ৩০ হাজারের বেশি লোক নিহত হয়েছে।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.