ভূমিকম্পের পরদিন ইরাক সীমান্তবর্তী ইরানের সারপোল-ই জাহাব শহরের রাস্তায় খাবার খাচ্ছে বাড়ি হারানো একটি পরিবার  :এএফপি
ভূমিকম্পের পরদিন ইরাক সীমান্তবর্তী ইরানের সারপোল-ই জাহাব শহরের রাস্তায় খাবার খাচ্ছে বাড়ি হারানো একটি পরিবার :এএফপি

ইরানে খোলা আকাশের নিচে ক্ষতিগ্রস্তরা

উদ্ধার অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা : নিহত ৪৪৫
বিবিসি ও রয়টার্স

ইরানের পশ্চিমাঞ্চলে ৭ দশমিক ৩ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে ঘরবাড়ি, ভবন ভূমিসাৎ হওয়ায় তীব্র শীতের মধ্যে হাজার হাজার মানুষ খোলা আকাশের নিচে দ্বিতীয় রাত পার করল। ভূমিকম্পে হতাহতদের উদ্ধার অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করেছে দেশটির জরুরি মেডিক্যাল সার্ভিস। এখন পর্যন্ত ৪৪৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আহত হয়েছেন সাত হাজারেরও বেশি।
রোববার রাতের এ ভূমিকম্পে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত পাহাড়ি প্রদেশে কেরমানশাহে জরুরি ত্রাণসামগ্রী পৌঁছাতে হিমশিম খাচ্ছে ইরান সরকার। এ প্রদেশে শত শত ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে। ইরাক-ইরান সীমান্তে রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে অনুভূত ভূমিকম্পে শুধু ইরানেই মারা গেছে ৪৩০ জন এবং আহত হয়েছে সাত হাজারের বেশি মানুষ। মঙ্গলবার ইরানে জাতীয় শোক ঘোষণা করে দেশটির সরকার। ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরির্দশন করেছেন। তবে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়নি। ফলে প্রকৃত চিত্র উদঘাটনে নিজ নিজ সূত্রের ওপর ভরসা করতে হচ্ছে গণমাধ্যমকে। এ ভূমিকম্পে ইরাকের অংশে ৯ জন মারা গেছে এবং আহত হয়েছে কয়েক শত মানুষ।
এ দিকে ভূমিকম্পে হতাহতদের উদ্ধার অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করেছে দেশটির জরুরি মেডিক্যাল সার্ভিস। এখন পর্যন্ত ৪৪৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আহত হয়েছেন সাত হাজারেরও বেশি। হতাহতদের অস্থায়ী আশ্রয় তৈরি করার কাজ চলছে। অনেকেই খোলা আকাশের নিচে রাত কাটিয়েছেন। ইরানের জরুরি মেডিক্যাল সার্ভিস প্রধান পির হোসেন কুলিভান্দ বলেছেন, ‘কেরমানশাহ প্রদেশে উদ্ধার অভিযান সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি হতাহতদের প্রতি সহমর্মিতা জানিয়েছেন এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট সবাইকে এই সঙ্কট সমাধানে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।
ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি বলেছেন, সাম্প্রতিক ভূমিকম্পে তার দেশের দুর্গত মানুষদের জন্য বিদেশী সাহায্য গ্রহণের সিদ্ধান্ত এখনো নেয়া হয়নি। তবে ইরানের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যদি প্রয়োজন মনে করেন তাহলে যথাসময়ে তা জানিয়ে আন্তর্জাতিক সাহায্য আহ্বান করা হবে।
সোমবার বিশ্বের বহু দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা ইরানের ভূমিকম্পে নিহতদের জন্য শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করে দুর্গত মানুষদের সাহায্যে এগিয়ে আসার আগ্রহ প্রকাশ করে। এ সম্পর্কে বাহরাম কাসেমি জানান, বিশ্বের বহু দেশের রাষ্ট্র বা সরকারপ্রধান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, তেহরানে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত, জাতিসঙ্ঘ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ বহু আন্তর্জাতিক সংস্থা টেলিফোন করে অথবা সরকারি বার্তা পাঠিয়ে কিংবা গণমাধ্যমে বিবৃতি প্রকাশ করে ইরানি জনগণকে শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন। সেই সাথে এসব দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা সাহায্য পাঠানোর যে আগ্রহ প্রকাশ করেছে সেজন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, এখনো আন্তর্জাতিক সাহায্য গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। প্রয়োজনে সাহায্য আহ্বান করে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবে তেহরান।
ইরাকি প্রেসিডেন্টের কাছে চীনা প্রেসিডেন্টের শোক বার্তা
সিনহুয়া জানায়, ইরাকি প্রেসিডেন্ট ফুয়াদ মাসুমের কাছে শোক বার্তা পাঠিয়েছেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। ইরাক-ইরান সীমান্তে ভয়াবহ ভূমিকম্পের কারণে মঙ্গলবার তিনি এ শোক বার্তা পাঠান। চীনা প্রেসিডেন্ট তার শোক বার্তায় বলেন, ভূমিকম্পে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হওয়ায় তিনি গভীরভাবে শোকাহত। শি আরো বলেন, ‘চীন সরকার ও জনগণ এবং আমার পক্ষে নিহতদের পরিবারের প্রতি শোক প্রকাশ করছি। শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।’ তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি ইরাকি জনগণ তাদের প্রেসিডেন্ট ও সরকারের নেতৃত্বে এ ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারবে।’

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.