অ্যাপথাস আলসার

ডা: নাহিদ ফারজানা

মুখে যত রকমের ক্ষত হয় অ্যাপথাস আলসার তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি হয় এবং প্রায় সবাই কমবেশি এই অ্যাপথাস আলসারের সাথে পরিচিত।
অ্যাপথাস আলসারের কারণগুলো
অ্যাপথাস আলসারের একেবারে সঠিক কোনো কারণ পাওয়া যায়নি। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে অ্যাপথাস হতে পারে তা নিম্নরূপ :
১. বংশগতভাবে অনেক সময় অ্যাপথাস আলসার হয়ে থাকে।
২. আঘাতের ফলে হতে পারে। অনেক সময় দেখা যায় দাঁত ব্রাশ করার সময় মুখের কোথায় ব্রাশের খোঁচায় মুখের নরম টিস্যু আঘাতপ্রাপ্ত হলে অ্যাপথাস আলসারের রূপ নিতে পারে।
৩. ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশনের মাধ্যমে হতে পারে। যেমন : স্ট্রেপটোকক্কাল ইনফেকশন।
৪. রোগ প্রতিরোধের অস্বাভাবিকতা দেখা দিলে হতে পারে।
৫. দুশ্চিন্তা, মানসিক অবসাদ, উদ্বিগ্নতা, রাত জাগার কারণে হতে পারে।
৬. ভিটামিন বি১২-এর অভাবে, আয়রনের অভাবে বিশেষ করে ফলিক এসিডের অভাব, মেয়েদের পিরয়ডের সময় হতে পারে।
৭. হরমোনের অভাবে হতে পারে।
৮. হজম সমস্যা থাকলে হতে পারে।
কোথায় হয়?
গালের নরম অংশে, জিহ্বার পাশে, ঠোঁটের ভেতরে, মাড়িতে বেশি হয়।
কাদের বেশি হয়?
ষ ছেলেদের বেশি হয়।
ষ বয়স্কদের বেশি হয়।
ষ পেশাদার শ্রমিক, ক্লার্কদের এবং অধূমপায়ীদের বেশি হয়।
অ্যাপথাস আলসারের ক্ষত স্থানটি ৫-৭ মিলিমিটার পর্যন্ত হতে পারে। এই ঘায়ের মধ্যকার অংশ হলদে সাদা বর্ণের এবং বাইরে লাল রঙের লাইন দিয়ে সীমাবদ্ধ থাকে। এটা ৭-১০ দিনের মধ্যেই ভালো হয়ে যায়। তবে এতে প্রচণ্ড ব্যথা হয়। রোগী খেতে পারে না। মুখ নাড়াচাড়া করতেও সমস্যা হয়।
চিকিৎসা
অ্যাপথাস আলসার নিজে নিজেই সেরে যায়। নিজে নিজেই এটা ৬-১০ দিন থাকে। অতঃপর ভালো হয়ে যায়। তবে এর কিছু চিকিৎসা করলে রোগী আরাম পায়।
ষ টেট্রাসাইক্লিন নিয়ে কুলি করলে ভালো হয়;
ষ টাইঅ্যামাসিনোলোন দাঁতের পেস্ট ব্যবহার করা যায়;
ষ এ ছাড়া পাইরালভেক্স নামক লোশন ব্যবহারেও ভালো হয়।

লেখিকা : ডাইরেক্টর ও ডেন্টাল সার্জন, নাহিদ ডেন্টাল কেয়ার, ১১৭/১, এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা।
ফোন : ০১৭১২-২৮৫৩৭২

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.