বাংলাদেশে নিরপেক্ষ নির্বাচনই একমাত্র সমাধান : ব্রিটিশ হুইপ

নয়া দিগন্ত ডেস্ক

অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনই বাংলাদেশের সব সমস্যা সমাধানের একমাত্র পথ বলে মন্তব্য করেছেন ব্রিটেনের সরকারদলীয় হুইপ এন্ড্রু স্টিফেনসন। গত সোমবার রাতে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের হাউজ অব কমন্সে ব্রিটিশ বাংলাদেশী কমিউনিটি অ্যালায়েন্স আয়োজিত এক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন।
বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা ও মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত ওই সভায় ব্রিটিশ পার্লামেন্টের একাধিক এমপি অংশ নেন। বাংলা ট্রিবিউন।
সভায় আলোচনার বিষয়বস্তু ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে উত্থাপন করা হবে বলে জানান এই এমপি। স্টিফেনসন বলেন, আলোচনার মাধ্যমে বাংলাদেশের রাজনৈতিক সঙ্কটের সমাধান চায় ব্রিটেন। বাংলাদেশের আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হতে হবে অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু। এ ক্ষেত্রে সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ থাকাও জরুরি। সংসদে অবশ্যই জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধি থাকতে হবে।
আলোচনায় অংশ নিয়ে শ্যাডো মিনিস্টার কেট কলার্ন এমপি বলেন, উন্নয়ন সহযোগী দেশ হিসেবে বাংলাদেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা দেখতে চায় ব্রিটেন।
বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনে সংলাপে বসার আহ্বান জানান বক্তারা। তারা মনে করেন, ২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচন ছিল ত্রুটিপূর্ণ। সঙ্কট নিরসনে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি জাতীয় নির্বাচনই সব সমস্যার সমাধান করতে পারে বলে মনে করেন তারা।
মূলত বিএনপির রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ও সমর্থক কয়েকটি কমিউনিটি নেতা সেমিনারটি আয়োজন করেন। শুরুতেই বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির ওপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র দেখানো হয়।
এন্ড্রু স্টিফেনসনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো অংশ নেন আয়োজক সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা কাউন্সিলার মুজাক্কির আলী, শ্যাডো মিনিস্টার জেক বেড়ি, জুলি কুপার এমপি, ব্রিটিশ লর্ড সভার সদস্য লর্ড কোরবান হোসেন, গ্রাহাম জোন্স এমপি, মাহিদুর রহমান, ড. আবুল হাসনাত, ব্যারিস্টার এম এ সালাম, ব্যারিস্টার নজির আহমেদ, যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিক, বিবিসিএর সভাপতি ব্যারিস্টার আফজা জেড এস আলী, সাধারণ সম্পাদক ফয়জুন নূর ও আবিদুল ইসলাম আরজু।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.