চাঁদপুরে কোল্ডস্টোরে ৬ লাখ বস্তা আলু পড়ে আছে

শরীফ চৌধুরী চাঁদপুর

চাঁদপুর জেলার ১১টি কোল্ড স্টোরেজে কৃষকদের লাখ লাখ বস্তা আলু পড়ে আছে। ২০ দিনের মধ্যে এসব আলু কৃষকরা না নিলে এগুলো পচে যাবে বলে কোল্ড স্টোরেজ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। এ দিকে পাইকাররাও মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত। তারা ব্যাংক থেকে লাখ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে মওসুমে আলু কৃষকদের কাছে ক্রয় করে কোল্ড স্টোরেজে রেখে ছিলেন। কিন্তু দাম না পাওয়ায় এবার তারাও ক্ষতিগ্রস্ত। কৃষকেরা এবার আলুর মূল্য না পাওয়ায় কোল্ড স্টোরেজ থেকে আলু নিচ্ছেন না। এক হিসাবে দেখা যায়, এ পর্যন্ত কৃষকরা তাদের মজুদকৃত খাওয়ার আলু মাত্র ৪৫ শতাংশ নিয়েছে। বাকি ৫৫ শতাংশ আলু অর্থাৎ ৫৫ হাজার মেট্রিক টন আলু কোল্ড স্টোরেজগুলোতে পড়ে আছে, যা বস্তায় ছয় লাখ ৮০ হাজার। সরকারিভাবে এসব আলু রফতানির দাবিও করেছে কৃষকেরা।
চাঁদপুর মনোহরখাদি কোল্ড স্টোরেজের ব্যবস্থাপক রুহুল আমিন সিদ্দিকী জানিয়েছেন, চাঁদপুর জেলায় ১১টি কোল্ড স্টোরেজে প্রায় ৫৫ হাজার টন খাওয়ার আলু মজুদ করেছেন কৃষকেরা, যা দুই টন করে ছয় লাখ ৮০ হাজার বস্তা। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মাত্র ৪৫ শতাংশ আলু কৃষকরা সংগ্রহ করেছেন। তিনি আরো জানান, আগামী ১৫-২০ দিনের মধ্যে এসব আলু কৃষকেরা সংগ্রহ না করলে সব পচে যাবে। এতে কৃষকেরা আরো বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। মতলব দক্ষিণ মার্শাল এ- মমতা কোল্ড স্টোরেজের ম্যানেজার আনোয়ার পাটওয়ারী জানান, আলুর দাম না থাকায় তাদের কোল্ড স্টোরেজও ৫৫ শতাংশ আলু পড়ে আছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.