নতুন প্রধান বিচারপতি নিয়োগ বিলম্ব সরকারের দূরভিসন্ধিমূলক কৌশল : মওদুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নতুন প্রধান বিচারপতি নিয়োগ বিলম্বকে সরকারের দূরভিসন্ধিমূলক কৌশল অভিহিত করে অবিলম্বে ওই পদে নিয়োগের দাবি জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।
জাতীয় প্রেস কাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে গতকাল ঢাকাস্থ ঝিনাইদহ জাতীয়তাবাদী ছাত্র ফোরামের উদ্যোগে কারাবন্দী নেতা চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মশিউর রহমান ও আবদুল ওহাবের মুক্তির দাবিতে এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।
মওদুুদ বলেন, প্রধান বিচারপতির পদ একদিনের জন্য শূন্য থাকার কোনো অবকাশ নাই সংবিধানে। আপনারা (সরকার) এই যে সময় অতিবাহিত করছেন, এই যে সময় নিচ্ছেন প্রধান বিচারপতি নিয়োগের ব্যাপারে, যা অত্যন্ত দূরভিসন্ধিমূলক একটা কৌশল সরকারের। আমরা দাবি করছি, অবিলম্বে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ করুন।
একই সাথে মওদুদ আহমদ বলেন, কেন সময় নিচ্ছেন আমরা যে বুঝি না, তা নয়। নানাভাবে বিচারপতিদের ওপর চাপ সৃষ্টি করে, চাপ বজায় রাখার জন্যই আজকে এসব করছেন। আমরা এর প্রতিবাদ জানাই। আমরা বলব, এটা করবেন না, এই প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করবেন না।
প্রধান বিচারপতি পদে নিয়োগ সম্পর্কে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বক্তেব্যর সাথে দ্বিমত পোষণ করে সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, আইনমন্ত্রী বলেছেনÑ এটা (প্রধান বিচারপতির পদ) কোনো সময়সীমা নাই। এটা ভুল, এটা ঠিক নয়।
তিনি বলেন, বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রীর পদ একদিনের জন্য শূন্য থাকতে পারবে না। প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি ও প্রধান বিচারপতিÑ এসব পদে সময়পেণের কোনো সুযোগ নাই। আজকে দুঃখের সাথে বলতে হয়, প্রধান বিচারপতি এখন পর্যন্ত সরকার নিয়োগ করছেন না। কেন করছেন না? এটা একটি অত্যন্ত গভীর দূরভিসন্ধিমূলক একটা ষড়যন্ত্র বলব না, একটা কৌশল সরকারের। নানাভাবে বিচারপতিদের ওপর চাপ সৃষ্টি করে, চাপ বজায় রাখার জন্যই আজকে এসব তারা করছে।
তিনি বলেন, অবিলম্বে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ করুন। আমরা আশা করব, যাকেই নিয়োগ করেন, এটা তো অ্যাপিলেট ডিভিশনের জ্যেষ্ঠতম যিনি সদস্য থাকেন তাকেই নিয়োগ দান করা হয়। যাই হোকÑ এটা তো সরকারেরর এখতিয়ার। আমরা আশা করব, অবিলম্বে এই পদটি যেন পূরণ করে দেয়া হয়। তাতে সুপ্রিম কোর্ট অঙ্গনে যে শূন্যতা ও অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে, এই অনিশ্চয়তা দূর হয়ে যাবে, আবার সুপ্রিম কোর্ট তার অধিকার পালন করতে সম হবে।
কোনো রাজনীতিবিদের নামে সেনানিবাসের নামকরণ হলে তা দেশের জন্য মঙ্গলজনক হবে না বলে মন্তব্য করেছেন মওদুদ আহমদ।
তিনি বলেন, খবরের কাগজে দেখলাম পটুয়াখালীতে সেনানিবাস হবে, সেই সেনানিবাসের নাম হবে নাকি শেখ হাসিনা সেনানিবাস। এটা তো কল্পনাতীত ব্যাপার। যশোর ক্যান্টনমেন্ট, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট, সাভার ক্যান্টনমেন্ট যত জায়গায় আছে সেনানিবাস, কোথাও কোনো রাজনীতিবিদের নামে কোনো সেনানিবাস হয়েছে এটা আমি শুনি নাই।
তিনি বলেন, কোনো রাজনীতিবিদের নামে যদি সেনানিবাস হয়, তখনই রাজনীতি চলে আসে। আমি দাবি জানাচ্ছি, বলতে চাই সরকারকে, সেনাবাহিনীকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখুন, তাদের সাথে রাজনীতিকে সম্পৃক্ত করবেন না। কোনো ব্যক্তির নামে, কোনো রাজনীতিবিদের নামে সেনানিবাস করবেন না, এটা করলে দেশের জন্য মঙ্গলজনক হবে না।
সংগঠনের সভাপতি তারিখ উজ জামান তারিখের সভাপতিত্বে আলোচনায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, নিতাই রায় চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা আজিজুল বারী হেলাল, জয়ন্তু কুমার কুণ্ড প্রমুখ বক্তব্য দেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.