ব্যথিত হৃদয়ে ইন্দোনেশিয়া ফিরে যাচ্ছেন সেই তরুণী
ব্যথিত হৃদয়ে ইন্দোনেশিয়া ফিরে যাচ্ছেন সেই তরুণী

ব্যথিত হৃদয়ে ইন্দোনেশিয়া ফিরে যাচ্ছেন সেই তরুণী

পটুয়াখালী সংবাদদাতা

সুদূর ইন্দোনেশিয়া থেকে বাউফলে চলে আসা নিকি উল ফিয়ার নামের সেই তরুণী ব্যথিত হৃদয়ে স্বদেশে ফিরে যাচ্ছেন! প্রেমিকের বিয়ের বয়স হয়নি। যুবকের প্রেমের টানে বিমানের টিকিটের জন্য ইতোমধ্যে তিনি ট্রাভেল এজেন্সির সাথে কথা বলেছেন। ওই তরুণীর প্রেমিক ইমরানের বয়স ২১ বছর না হওয়ায় আইনি প্রতিবন্ধতার সৃষ্টি হলে তিনি স্বদেশে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তবে ইমরানের বিয়ের বয়স না হওয়া পর্যন্ত তিনি অপেক্ষা করবেন।

জানা গেছে, দাসপাড়া ইউনিয়নের দাসপাড়া গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে পটুয়াখালী সরকারি কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র মো: ইমরান হোসেনের (১৯) সাথে এক বছর আগে ফেসবুকের মাধ্যমে ইন্দোনেশিয়ার মুসলিম তরুণী নিকি উল ফিয়ার (২৪) পরিচয় হয়। একপর্যায়ে তারা প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। নিকি উল ফিয়া ইন্দোনেশিয়ার সুরা বায়া বিভাগের জাওয়া গ্রামের ইউ লি আন থোর মেয়ে। তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার একটি বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করছেন।

গত ১ ডিসেম্বর নিকি উল ফিয়া ভালোবাসার টানে সুদূর ইন্দোনেশিয়া থেকে ঢাকা চলে আসেন। সেখান থেকে ৩ ডিসেম্বর প্রেমিক ইমরানের পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার দাসপাড়া গ্রামের বাড়িতে আসেন।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, এখানে এসে নিকি যখন জানলেন, আইন অনুযায়ী প্রেমিক ইমরানের বিয়ের বয়স ২১ বছর হয়নি। তখন তিনি হতাশ হয়ে পড়েন। তার হাস্যোজ্জ্বল মুখ মলিন হয়ে যায়। নীরবে চোখের পানি ফেলেছেন।

নিকি উল বলেন, খবরটি জানার পর আমি ব্যথিত হয়েছি। দু-এক দিনের মধ্যে আমি দেশে চলে যাবো। বিমানের টিকিটের জন্য ট্রাভেল এজেন্সির সাথে কথা বলেছি। ইমরান ও তার পরিবারের সদস্যদের ব্যবহারে আমি মুগ্ধ। আমি ইমরানের বিয়ের বয়স না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করব।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.