সারাদেশে নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধের দাবি প্রতিরোধ ফোরামের

নিজস্ব প্রতিবেদক

সারাদেশে নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধের দাবি জানিয়েছে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরাম (জেএনএনপিএফ)’র নেতৃবৃন্দ।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের তৃতীয় তলার কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানায় ফোরামের প্রতিনিধিরা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন একশনএইড বাংলাদেশের ম্যানেজার কাশফিয়া ফিরোজ (ওমেন রাইটস অ্যান্ড জেন্ডার ইক্যুইটি) প্রোগ্রাম অফিসার, নুরুন নাহার বেগম (ওমেন রাইটস অ্যান্ড জেন্ডার ইক্যুইটি), জাতীয় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরামের সভাপতি মমতাজ আরা বেগম, সদস্যসচিব মাহমুদা বেগম, জাতীয় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরামের প্রোগ্রাম অফিসার তুহিন সুলতানা, বিভিন্ন নেট ওয়ার্ক সংস্থার নির্বাহী পরিচালকগন এবং সাংবাদিকবৃন্ধ।

এতে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, সারা বাংলাদেশে নারী ও শিশুরা নির্যাতন, নিপীড়ন এবং ধর্ষণের শিকার হয়েই চলেছে। সাম্প্রতিককালে নারীর প্রতি হওয়া নির্যাতনের ঘটনা পর্যালোচনা করে দেখা যায় অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে ধর্ষণের ঘটনা আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। যা বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের মানুষের কাছে আলোচ্য বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে বিভিন্ন জেলার নেটওয়ার্ক সংস্থার প্রতিনিধিরা নিজ নিজ জেলার নারী নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরেন। তার পর সদস্য সচিব জাতীয় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরামের আওতাধীন বিভিন্ন জেলার নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরা হয়। এবং বিভিন্ন জেলার নারী নির্যানের একটি পরিসংখ্যান উপস্থাপন করেন। জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত জাতীয় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরামের নেটওয়ার্ক সংস্থা থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী আটটি জেলায় মোট নারী শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন মোট ৩৯২ জন, যৌতুকের জন্য নির্যাতিত হয়েছেন ১২টি জেলায় ১৩৫ জন, ধর্ষণ হয়েছে সাতটি জেলার মোট ৪৮ জন এবং গণধর্ষন হয়েছেন দুইজন দু’টি জেলায়। এই ঘটনাগুলোতে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরাম ভিকটিমদের সহায়তায় বিভিন্নভাবে কাজ করেছে।

মমতাজ আরা বেগম বলেন, বাংলাদেশে নির্যাতনের বিচার দ্রুত হয় না। তিনি শাজনীন হত্যার ১৯ বছর পর বিচারের কথা উল্লেখ করেন।

কাশফিয়া ফিরোজ বলেন, বিচার কার্যক্রম দীর্ঘ হওয়ার কারণে বিচার প্রক্রিয়ার প্রতি মানুষ আস্থা হাড়িয়ে ফেলে। কাজেই আমাদের দাবি দ্রুত বিচার কার্যক্রম সম্পন্ন করা এবং প্রাপ্য শাস্তি প্রদান করা।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, জেএনএনপিএফ নারীর প্রতি নির্যাতন প্রতিরোধ ও প্রতিকার এবং নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ঐক্য গঠন করেছে। তাদের লক্ষ্য হচ্ছে দেশব্যাপী নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিরোধমূলক আন্দোলন গড়ে তোলার পাশাপাশি সব নারী নির্যতনের বিরুদ্ধে প্রশাসনের ভূমিকা ইতিবাচক হওয়া। নারী নির্যাতনের বিচার দ্রুত নিষ্পত্তি ও যথাযথ বিচার নিশ্চিত করা এবং সব প্রতিষ্ঠানসহ সমাজের সব মানুষের অংশগ্রহণে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.