জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার প্রতিবাদে গতকাল ইস্তাম্বুলে বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয়রা ; গাজায় নতুন ইন্তিফাদা ঘোষণা করছেন হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া ; ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষরের পর গণমাধ্যমের সামনে  ট্রাম্প :এএফপি
জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার প্রতিবাদে গতকাল ইস্তাম্বুলে বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয়রা ; গাজায় নতুন ইন্তিফাদা ঘোষণা করছেন হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া ; ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষরের পর গণমাধ্যমের সামনে ট্রাম্প :এএফপি
জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী স্বীকৃতি

ট্রাম্পের ঘোষণা আরব-ইউরোপ জাতিসঙ্ঘের প্রত্যাখ্যান

এএফপি, বিবিসি, রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিলেও তা প্রত্যাখ্যান করেছে মধ্যপ্রাচ্যের ও মুসলিম রাষ্ট্রগুলো, ইউরোপ ও জাতিসঙ্ঘ।
বুধবার মধ্যপ্রাচ্যের ও মুসলিম দেশগুলো ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তকে ‘অস্থিরতাকবলিত অঞ্চলটিতে উত্তেজনা আরো বাড়িয়ে দেয়ার পদপে’ আখ্যায়িত করে এর নিন্দা জানিয়েছে। ফিলিস্তিন বলেছে, এ পদেেপর মাধ্যমে শান্তি আলোচনার মধ্যস্থতাকারী হিসেবে ওয়াশিংটন তার নেতৃত্বদানকারী ভূমিকার জলাঞ্জলি দিয়েছে। জাতিসঙ্ঘ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস জেরুসালেমে সরিয়ে নেয়ার ট্রাম্পের সিদ্ধান্তে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠা ঝুঁকির মুখে পড়বে বলে সতর্ক করেছে।
জেরুসালেম বিষয়ে কয়েক দশক ধরে যুক্তরাষ্ট্রের অনুসৃত নীতি পাল্টে দেয়া ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান মিত্ররা। ট্রাম্পের ‘একতরফা’ সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করেছে ফ্রান্স, পাশাপাশি মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি বজায় রাখারও আবেদন জানিয়েছে দেশটি। ব্রিটেন বলেছে, ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্ত শান্তি উদ্যোগের েেত্র কোনো ভূমিকা রাখবে না এবং জেরুজালেমে ইসরাইল ও ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের অংশীদারিত্ব থাকা উচিত। জার্মানি বলেছে, জেরুসালেমের মর্যাদা শুধু দ্বি-রাষ্ট্রীক সমাধানের ভিত্তিতেই নির্ধারিত হতে পারে।
ইউরোপীয় ইউনিয়ন জানিয়েছে তারা জেরুসালেমে দূতাবাস স্থানান্তর করবে না। ইসরাইলে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের দূত ইমানুয়েল গিয়াউফ্রেট বলেন, ‘এ ব্যাপারে জাতিসঙ্ঘের একটি প্রস্তাব রয়েছে। জেরুসালেমের বিষয়ে অবশ্যই ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে আলোচনা হতে হবে। এ আলোচনার আগেই এ ব্যাপারে নতুন অবস্থান নেয়া ইউরোপীয় ইউনিয়নের জন্য ভালো কিছু নয়।’
যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র আরব রাষ্ট্রগুলোও ট্রাম্পের সিদ্ধান্তে বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। এক বিবৃতিতে সৌদি আরব বলেছে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণা ‘অযৌক্তিক ও দায়িত্বজ্ঞানহীন’। আরব রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে ইসরাইলের সাথে প্রথম শান্তিচুক্তি করা মিসর ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, এতেও জেরুসালেমের আইনি মর্যাদা নিয়ে বিতর্কের অবসান ঘটবে না। জর্দান বলেছে, পূর্ব জেরুসালেমের ওপর ইসরাইলি দখলদারিত্বকে দৃঢ় করায় ট্রাম্পের পদপে ‘আইনি বৈধতা হারিয়েছে’।
লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন বলেছেন, জেরুসালেমের বিষয়ে ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত সঙ্কট সৃষ্টি করবে এবং মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি প্রচেষ্টার মধ্যস্থতাকারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বাসযোগ্যতাকে ঝুঁকির মুখে ফেলবে। এ সিদ্ধান্তে মধ্যপ্রাচ্যের স্থিতিশীলতা হুমকির মুখে পড়বে আর তাতে বৈশ্বিক স্থিতিশীলতাও ঝুঁকির মুখে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি।
ট্রাম্পের পদপেকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলে মন্তব্য করেছে তুরস্ক। ট্রাম্পের এই ‘ভুল’ সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে দেশটির সরকার। ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় তুরস্কের ইস্তাম্বুলে যুক্তরাষ্ট্রের কন্স্যুলেটের বাইরে জড়ো হয়ে বিােভ করেন কয়েক শ’ প্রতিবাদকারী। কন্স্যুলেট ভবনের দিকে কয়েন ও অন্যান্য বস্তু ছুড়ে মারেন তারা।
ট্রাম্পের পদপেকে ইসরাইল-ফিলিস্তিন সঙ্ঘাত নিরসনে জাতিসঙ্ঘের দেয়া প্রস্তাবের লঙ্ঘন অভিহিত করে এর ‘তীব্র নিন্দা’ করেছে ইরান। দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বলেছেন, মধ্যপ্রাচ্যকে অস্থিতিশীল করে ইসরাইলের নিরাপত্তা রার জন্য যুদ্ধ শুরু করার চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র। মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজ্জাক বিশ্বের মুসলিমদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ‘আমরা যুক্তরাষ্ট্রের এ পদেেপর তীব্র বিরোধী, এটি পরিষ্কার করে দিন।’

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.