মোহাম্মদ সাঈদ খোকন (ফাইল ফটো)
মোহাম্মদ সাঈদ খোকন (ফাইল ফটো)

পরিচ্ছন্ন ঢাকা গড়তে ইমামদের সহযোগিতা চান মেয়র খোকন

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরিচ্ছন্ন, সবুজ ও বাসযোগ্য ঢাকা গড়তে ইমাম-খতিবদের সহায়তা চেয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

তিনি বলেছেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে, সন্ত্রাস, মাদকসহ নানা অপরাধ রুখে দিতে মসজিদের ইমামরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। আমি ১০ বার কথা বললে মানুষ একবার শুনে, আর আপনারা (ইমাম/খতিব) বললে মানুষ তা সবসময় শুনে এবং অনুসরণ করে। তাই নগরীকে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে ও বাসযোগ্য করে গড়ে তুলতে ইমামরা মূল ভূমিকা পালন করতে পারেন।

পবিত্র ঈদে-মিলাদুন্নবী সা: উপলক্ষে ডিএসসিসি এলাকার সব মসজিদের প্রতিনিধিদের নিয়ে আজ রাজধানীর বেইলি রোডস্থ অফিসার্স ক্লাবে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে মেয়র এ কথা বলেন।

সভায় ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বেলাল, প্রধান প্রকৌশলী ফরাজী শাহাবউদ্দীন আহমেদ, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল ডা. শেখ সালাহউদ্দীন, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমোডর মো. শফিকুল আলম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ইউসুফ আলী সর্দার, বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এবং মসজিদের খতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিন ও মসজিদ কমিটির সভাপতিরা উপস্থিত ছিলেন।

সাঈদ খোকন বলেন, হাজারো সমস্যায় জর্জরিত আমাদের এ শহর। এ শহরে আগে শতকরা ১০ ভাগ সড়ক বাতি জ্বলত না। আজ সারা ঢাকা এলইডি বাতিতে আলোকিত। রাস্তাঘাট অনেক উন্নত। মাত্র দুই বছরের প্রচেষ্টায় নগরীর এ পরিবর্তন এনেছি।

তিনি আরো বলেন, কিছুদিন আগে চিকুনগুনিয়া দেখা দিয়েছিল। তখন আপনাদের কাছে দোয়া আহ্বান করেছি। দোয়ার সাথে আপনারা জুমার খুতবাসহ নামাজ শেষে নগরবাসীকে সচেতন করেছেন। কাজ করতে গিয়ে আপনাদের সহযোগিতা পেয়েছি।

ইমামদের উদ্দেশে মেয়র আরো বলেন, আপনারা মসজিদে বয়ান দেয়ার সময় পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে মুসল্লিদের উদ্দেশে কথা বলবেন। এ নগর সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন করে গড়ে তুলতে আপনাদের সহযোগিতা প্রয়োজন।

এসময় ডিএসসিসির প্রায় সাড়ে ৯শ’ মসজিদ থেকে আগত খতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিন ও মসজিদ কমিটির সভাপতিদের কাছ থেকে পরামর্শ ও সমস্যার কথা শুনতে চান মেয়র।

জবাবে ডিএসসিসি ৫৪নং ওয়ার্ডের এক মসজিদের ইমাম বলেন, এলাকায় কুকুরের অত্যাচারে নামাজে যেতে পারেন না। খুবই ভয়ংকর অবস্থা বিরাজ করছে। একই অভিযোগ করেন ৫২নং ওয়ার্ডের উত্তর মুরাদপুর এলাকার আল-আকসা মসজিদের খতিবও।

এ সমস্যার কথা স্বীকার করে মেয়র বলেন, রাজধানীর সর্বত্রই কুকুরে অত্যাচার বেড়েছে। হাইকোর্টের স্থিতিবস্থা থাকার কারণে কুকুর নিধন সম্ভব হচ্ছে না, তবে কুকুর বন্ধ্যাত্বকরণ কার্যক্রম চলছে। এ কার্যক্রম আরো গতিশীল করা হবে।

এ সময় কয়েকটি মসজিদের ইমাম মসজিদের হোল্ডিং ট্যাক্স মওকুফ করার জন্য মেয়রের প্রতি আহ্বান জানান।

জবাবে মেয়র বলেন, সব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ট্যাক্সের বাইরে। তবে মসজিদের সাথে যেসব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে সেগুলোয় আমরা সর্বোচ্চ ছাড় দিয়ে ট্যাক্স নির্ধারণ করবো।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.