বিভ্রান্ত ও হতাশ  কেন জাতিসঙ্ঘ?
বিভ্রান্ত ও হতাশ কেন জাতিসঙ্ঘ?

বিভ্রান্ত ও হতাশ কেন জাতিসঙ্ঘ?

বিবিসি

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষ দূত ইয়াংহি লি বুধবার এক ঘোষণায় জানিয়েছেন, বর্তমান পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য তার মিয়ানমার সফরের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দেশটির সরকার। এই স্পষ্ট নিষেধাজ্ঞাই ইঙ্গিত দেয় যে, রাখাইন রাজ্যে ভয়াবহ কিছু ঘটছে। 

লি বলেন, মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ হঠাৎ করেই জানিয়েছে যে তারা তাকে আর সহায়তা করবে না।সরকারের এ সিদ্ধান্তে তিনি ‘বিভ্রান্ত ও হতাশ’। এ সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে এই ইঙ্গিতই পাওয়া যাচ্ছে যে রাখাইনে নিশ্চয়ই ভয়াবহ রকমের শোচনীয় কোনো ঘটনা ঘটছে।

আগামী মাসে ইয়াংহি লি’র মিয়ানমার যাওয়ার কথা ছিল। লি সর্বশেষ মিয়ানমার গিয়েছিলেন গত জুলাইয়ে। এর পরই আগস্টের ২৫-এ ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞ শুরু হলে রাখাইন থেকে রোহিঙ্গারা ব্যাপক সংখ্যায় পালাতে থাকে। 

আন্তর্জাতিক চিকিৎসা সহায়তা সংস্থা ডক্টরস উইদাউট বর্ডার্স (মেডিসিনস স্যানস ফ্রন্তিয়েরস – এমএসএফ) এক জরিপ শেষে জানিয়েছে, গত ২৫ আগস্ট থেকে ২৪ সেপ্টেম্বর সময়টার মধ্যে অন্তত ৯ হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা করেছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। তবে একেবারে কাটছাঁট করা হিসেবেও সংখ্যাটি ৬ হাজার ৭ শ’র কম নয়, বরং বেশি। নিহতদের মধ্যে কমপক্ষে ৭৩০ জন পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশু।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.