সবচেয়ে বড় বিমান স্ট্রাটোলঞ্চ

মো: আবদুস সালিম

তোমরা আজ পৃথিবীর সবচেয়ে বড় উড়োজাহাজ সম্বন্ধে জানবে। অতিকায় এ উড়োজাহাজের নাম স্ট্রাটোলঞ্চ। এর আগে সবচেয়ে বড় উড়োজাহাজের নাম ছিল আন্তোনভ আন-২২৫ ম্রিয়া।
এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে স্ট্রাটোলঞ্চের আকাশে ওড়া শুরু হয়নি। এটি উড়তে পারে ২০১৯ সাল থেকে।
স্ট্রাটোলঞ্চের দুই পাশের পাখাসহ এর প্রশস্ততা প্রায় ৩৮৫ ফুট। আর এটি প্রায় ২৩৮ ফুট লম্বা। লেজের উচ্চতা প্রায় ৫০ ফুট। এর ওজন (খালি) সোয়া দুই লাখ কেজিরও অধিক। বহনক্ষমতা রয়েছে প্রায় ছয় লাখ কেজি ওজন। দানব বা অতিকায় এ বিমানকে উড্ডয়নের জন্য ছয়টি ইঞ্জিন (টার্বোফ্যান) লাগানো হয়েছে। রানওয়েতে চলার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে ২৮টি চাকা। ৩০ কোটি মার্কিন ডলার ধরা হয় এর বাজেট। তবে বিশাল কর্মযজ্ঞের কারণে বাড়তেও পারে এর ব্যয়।
এ সংক্রান্ত প্রজেক্টের যাত্রা শুরু ২০১১ সালে। মূল উদ্যোক্তার নাম পল অ্যালেন। এটি তৈরির প্রধান কারণ যাত্রীদের যাতায়াতকে আরো সহজ ও সাশ্রয়ী করা। পাশাপাশি কাজ করবে আকাশে থেকেই জ্বালানির জোগান দেয়ার, যা সাধারণ বিমানের ক্ষেত্রে মোটেই সম্ভব নয়। দূরত্বও কমাবে অতিকায় স্ট্রাটোলঞ্চ। কারণ পৃথিবীর মাটি থেকে রওনা করতে হবে না বিমানটিকে। এখন প্রশ্ন দেখা দিতে পারে তাহলে তা লঞ্চ করবে কিভাবে? এটাকে লঞ্চ করানো হবে আকাশে নিয়ে গিয়ে। এসবের ফলে কমে যাবে মহাকর্ষশক্তির আকর্ষণ বা টানও। এতে করেও সাশ্রয় হবে জ্বালানিব্যয়। পাশাপাশি এটিকে ব্যবহার করা যাবে এয়ার বেস হিসেবে।
ক্যালিফোর্নিয়ার মোজাভি মরুভূমিতে চলছে এ সংক্রান্ত প্রজেক্টের কাজ। অতিকায় বিমানটি দেখতে পাওয়া যায় ক্যালিফোর্নিয়ার একটি এয়ারপোর্টের হ্যাঙ্গারে। পরীক্ষা করা হয়েছে এর কারিগরি নানা দিক। পরীক্ষার ফলও সন্তোষজনক হয়েছে। সময় আসছে পৃথিবীর আকাশ দাপিয়ে বেড়ানোর। দূর থেকে দেখে মনে হবে দু’টি বিমান যোগ করে বানানো হয়েছে স্ট্রাটোলঞ্চকে। এটি আকাশে একটি ফুটবল মাঠের চেয়েও সামান্য বড়। এবার বোঝো, স্ট্রাটোলঞ্চ কত বড় বিমান।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.