ads

উত্তর কোরিয়া ও ইরানের ব্যাপারে নমনীয় হচ্ছেন ট্রাম্প
উত্তর কোরিয়া ও ইরানের ব্যাপারে নমনীয় হচ্ছেন ট্রাম্প

উত্তর কোরিয়া ও ইরানের ব্যাপারে নমনীয় হচ্ছেন ট্রাম্প

নয়া দিগন্ত অনলাইন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতা বহাল রাখবেন তবে তেহরানের বিরুদ্ধে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারেন। মার্কিন কর্মকর্তারা এ তথ্য প্রকাশ করেছেন বলে বার্তা সংস্থা এপি খবর দিয়েছে।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে শুক্রবার মধ্যে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে হবে যে, তিনি পরমাণু সমঝোতা থেকে বরে হয়ে যাবেন কিনা। এ প্রেক্ষাপটে এপি'র এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, ট্রাম্প আরো তিন মাসের জন্য পরমাণু সমঝোতা বহাল রাখবেন এবং এজন্য তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এইচ আর ম্যাকমাস্টারের মতামতকে গ্রহণ করতে যাচ্ছেন। এ তিনজনই পরমাণু সমঝোতা নিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অবস্থানের বিরুদ্ধে মত দিয়েছেন।

এপি'র রিপোর্ট বলা হয়েছে, ট্রাম্প পরমাণু সমঝোতা বহাল রাখলেও ইরানের বিরুদ্ধে নতুন কিছু নিষেধাজ্ঞা দিতে পারেন। এসব নিষেধাজ্ঞার আওতায় ইরানের কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি পড়বেন।

অন্যদিকে  মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের সঙ্গে আলোচনায় বসতে প্রস্তুত বলে দক্ষিণ কোরিয়ার গণমাধ্যম খবর দিয়েছে। ট্রাম্প বুধবার দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের সঙ্গে এক টেলিফোন সংলাপের সময় এই প্রস্তুতির কথা ঘোষণা করেন বলে এসব গণমাধ্যম জানিয়েছে।

ট্রাম্প দুই কোরিয়ার মধ্যকার সাম্প্রতিক আলোচনা এবং আসন্ন শীতকালীন অলিম্পিকে উত্তর কোরিয়ার সম্ভাব্য অংশগ্রহণ নিয়ে বুধবার জায়ে-ইনের সঙ্গে প্রায় আধাঘণ্টা কথা বলেন।টেলিফোনালাপের এক পর্যায়ে কিম জং-উনের সঙ্গে সরাসরি কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

এর আগে মঙ্গলবার দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের সঙ্গে সাক্ষাতের আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র সম্পর্কে বিশেষ সিদ্ধান্ত নেয়ার প্রয়োজনে তিনি কিম জং-উনের সঙ্গে কথা বলতে রাজি আছেন।

উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়া গত দুই বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে মঙ্গলবার দু’দেশের সীমান্তবর্তী পানমুনজমে দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় মিলিত হয়। এর আগে ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে শত্রুভাবাপন্ন দু’টি দেশের মধ্যে সর্বশেষ আলোচনা হয়েছিল।

মঙ্গলবারের বৈঠকে দুই কোরিয়া বিভিন্ন ইস্যুতে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা চালিয়ে যেতে সম্মত হয়। এমনকি দক্ষিণ কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র বিষয়ক বিশেষ প্রতিনিধি লি ডু হুন দাবি করেন, কোরীয় উপদ্বীপের উত্তেজনা কমিয়ে আনতে সামরিক আলোচনা করতেও রাজি হয়েছে উত্তর কোরিয়া। তবে পিয়ংইয়ং বলেছে, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র নিয়ে কোনো আলোচনা হবে না।

ads

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.