ads

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ
অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ

বিশ্বকাপ মাতাবেন মুজিব জারদান

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বয়সভিত্তিক ক্রিকেটের সর্বোচ্চ প্রেস্টিজিয়াস আসর অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ। তারুণ্যের কলরবে মুখরিত টুর্নামেন্টের ব্যাট-বলের দ্বৈরথ জন্ম দেয় ভবিষ্যতের মহা তারকার। ২০১৮ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপও মাঠে গড়াচ্ছে আগামী দিনের প্রতিভাবান ক্রিকেটারদের আত্মপ্রকাশের অপার সম্ভাবনা নিয়ে। বাংলাদেশ সময় শনিবার ভোরে তাসমান সাগর পাড়ের দেশ নিউজিল্যান্ডে শুরু হচ্ছে বয়সভিত্তিক ক্রিকেটের সবচেয়ে জনপ্রিয় টুর্নামেন্ট যুব বিশ্বকাপ। এবারের আসরে ব্যাট-বলের জাদু প্রদর্শনের রেসের শীর্ষে থাকা চার তরুণ ক্রিকেটারদের নিয়েই এ প্রতিবেদন।

শাহিন আফ্রিদি
প্রাতিষ্ঠানিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারের সূচনাতেই পাকিস্তানের ‘মিচেল স্ট্রার্ক’ তকমা দখলে পেলেন ১৭ বছর বয়সী বাঁ হাতি পেসার। অস্ট্রেলিয়ার পেসার স্টার্কের কার্বন-কপি স্টাইলে বিধ্বংসী এক স্পেলে শাহিন তোলপাড় তুলেছেন পাকিস্তানের ঘরোয়া ক্রিকেটে। ফার্স্ট কাস অভিষেকে খান রিচার্সের পক্ষে ৩৯ রানে তার ৮ উইকেটের ফিগার দেশটির ঘরোয়া ফরম্যাটের ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ পারফরম্যান্স। ২০১৫ সালে প্রাদেশিক ক্রিকেটের অভিষেক আসরের সর্বোচ্চ ১২ উইকেট শিকারে পাকিস্তানের অনূর্ধ্ব-১৬ দলের অন্তর্ভুক্তির পর থেকে পারফরম্যান্সেই নিয়মিত শিরোনামে জায়গা পেয়েছেন শাহিন। নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে তার বল হাতে বিধ্বংসী রূপ ধারণ সময়ের ব্যাপার বলেই অভিমত প্রকাশ বিশ্লেষকদের।

সুবমান জিল
বৈশ্বিক ক্রিকেটে তারকা ব্যাটসম্যানদের ঊর্বর ভূমি হিসেবেই সুপরিচিত ভারত। দেশটির ঐতিহ্যবাহী ধারাবাহিকতার মূর্ত রূপই যেন জিল। ২২ গজের উইকেটে তার ব্যাট হাতের প্রতিটি মুভমেন্টেই আত্মপ্রকাশ কিংবদন্তি রাহুল দ্রাবিড়ের। বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে নিয়মিতই দ্বিশত ও ত্রিশতকের ইনিংস খেলেছেন জিল। ২০১৪ সালে আন্তঃজেলা অনূর্ধ্ব-১৬ ক্রিকেটে উদ্বোধনী জুটিতে পাঞ্জাবের পক্ষে ৫৮৭ রানের রেকর্ড ব্রেকিং জুটির রেকর্ড দখলে নেন নিরমলকে সাথে করে। সম্প্রতি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে ভারতের ইয়থ ওয়ানডে সিরিজের সর্বোচ্চ রান করার কৃতিত্ব দখলে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে সুবমান জিল।

মুজিব জারদান
যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের ক্রিকেটের নতুন বিস্ময় মুজিব জারদান। ১৬ বছর বয়সী স্লো-বোলারকে ‘কমপ্লিট প্যাকেজ’ খ্যাতি দিতেও কুণ্ঠা হয়নি আফগান অ্যান্ডি মোলসের। অনূর্ধ্ব-১৯ দলে জারদানের উপস্থিতির কারণে বয়স থাকার পরও স্পিল বোলিংয়ের হালের সেনসেশন রাষিদ খানকে
নিউজিল্যান্ড আসরের জন্য অন্তর্ভুক্ত করেনি আফগানিস্তান। মূলত প্রতিপক্ষকে ধসিয়ে দেয়ার অভূতপূর্ব সক্ষমতা ইতোমধ্যেই প্রমাণ করেছেন মুবিজ জারদান। গত বছর বাংলাদেশ সফরে আফগান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের স্মরণীয় সিরিজ জয়োৎসবে তিনিই এক্স ফ্যাক্টর অবদান রাখেন। প্রথম ৩ ম্যাচে ৮ উইকেট শিকারি স্পিনারের একার নৈপুণ্যে নিশ্চিত হয় ৩-১ ব্যবধানে সফরকারীদের সিরিজ জয়। ১৯ রানে বাংলাদেশের ৭ ব্যাটসম্যানকে আউট করে যুব ওয়ানডের সর্বকালের সেরা ফিগারের রেকর্ড পৌঁছে যান। সিরিজ সমাপ্ত করেন ১৭ উইকেটের অবিশ্বাস্য ও মাইলফলক রচনার সাফল্যে। সম্প্রতি আফগানদের ঐতিহাসিক এশিয়া অনূর্ধ্ব-১৯ টুর্নামেন্টের শিরোপা জয়েও জারদান অন্যদের চেয়ে আলাদা। পাকিস্তানের বিপক্ষে ফাইনালে ভাগ্য নির্ধারণেও এক্স ফ্যাক্টর আফগান স্পিনারের। তার ৫ উইকেটে পরাজয় নিশ্চিত প্রতিপক্ষের। টুর্নামেন্টের ৫ ম্যাচে জারদানের ২০ উইকেটের পরিসংখ্যনই যথেস্ট প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ত্রাস সৃষ্টিতে।

আফিফ হোসেন
নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে পারফরম করার বাড়তি চ্যালেঞ্জে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে অংশ নেয়া উপমহাদেশীয় দেশগুলোর ব্যাটসম্যানেরা। এরপরও বাংলাদেশের অসি কোচ ড্যামিয়ান রাইট এবারের যুব বিশ্বকাপের শ্রেষ্ঠ বাঁ-হাতি ওপেনার হিসেবে আফিফকে পরিচিত করিয়ে দিতে মোটেও কুণ্ঠা বোধ করেননি। কিউই কন্ডিশন সম্পর্কে অস্ট্রেলিয়ান রাইটের ধারণা থাকায় লাইমলাইটে যুবা টাইগার ওপেনারও। ওপেনার হিসেবে উইকেটের চারপাশে আত্মবিশ্বাসী শট খেলার প্রতিভায় আফিফ অতুলনীয়। পুরোদস্তুর এ ওপেনার সম্প্রতি শিরোনাম দখলে নেন বল হাতের কারিশম্যাটিক নৈপুণ্যে। রাজশাহীর জার্সিতে বিপিএলের অভিষেকে অফ স্পিনে জাদুতে শিরোনামে আফিফ। রেকর্ড গড়েন টুর্নামেন্টের অভিষেকে সর্বকনিষ্ঠ বোলার হিসেবে ৫ উইকেট শিকারের। ক্যারিবীয় সাইকোন খ্যাত ক্রিস গেইলকেও আউট করেন আফিফ।

ads

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.