ads

শঙ্কায় মার্কিন প্রশাসন : বিদেশ ভ্রমণে সতর্ক করলো নাগরিকদের
শঙ্কায় মার্কিন প্রশাসন : বিদেশ ভ্রমণে সতর্ক করলো নাগরিকদের

শঙ্কায় মার্কিন প্রশাসন : বিদেশ ভ্রমণে সতর্ক করলো নাগরিকদের

নয়া দিগন্ত অনলাইন

ভারতে ঘুরতে যাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্কতা আরো একটু বাড়াতে হবে। দেশের পর্যটকদের এমন বার্তাই দিল মার্কিন প্রশাসন।

পর্যটকদের কাছে কোন দেশ কতটা নিরাপদ? কোথায় যাওয়া উচিত, আর কোন দেশকে একেবারেই ভ্রমণ-তালিকা থেকে বাদ দিয়ে রাখতে হবে? এ সব পরামর্শ নিয়েই নয়া গাইড-বুক প্রকাশ করেছে মার্কিন প্রশাসন।

সম্প্রতি প্রকাশিত ওই তালিকায় বিশ্বের সব দেশের নামই রয়েছে।

সব ক’টি দেশকে মোট চারটি স্তরে ভাগ হয়েছে। সেখানে ভারত দ্বিতীয় স্তরে রয়েছে। এ দেশে বেড়াতে আসার ক্ষেত্রে আরও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে মার্কিন নাগরিকদের। ভারতে অপরাধ এবং সন্ত্রাস ক্রমশ বাড়ছে বলেই এই বাড়তি সতর্কতা।

জম্মু-কাশ্মীরের মতো রাজ্যে যেতে একেবারেই নিষেধ করা হয়েছে। কারণ হিসাবে বলা হয়েছে, ওই রাজ্যে সশস্ত্র সংঘর্ষের ঘটনা লেগেই থাকে। ওই বিপজ্জনক পরিস্থিতির মধ্যে মার্কিন নাগরিকদের যাতে পড়তে না হয়, তাই এই সাবধান বার্তা।

ভারত-পাক সীমান্তের ১০ কিলোমিটারের মধ্যে কোনো জায়গাতে যেতেও একই নির্দেশিকা। যদিও, পূর্ব লাদাখ এবং লেহ-কে এই নিষেধের বাইরে রাখা হয়েছে।

পাকিস্তান ওই তালিকার তৃতীয় স্তরে রয়েছে। তৃতীয় স্তরের দেশগুলিতে যাওয়ার আগে বার বার ভেবে দেখতে বলা হয়েছে পর্যটকদের।

আফগানিস্তান রয়েছে চতুর্থ স্তরে। ওই স্তরের দেশগুলিতে পর্যটকদের যেতে একেবারেই নিষেধ করেছে মার্কিন বিদেশ দফতর।

তারা জানিয়েছে, পুরনো সব তালিকা পাল্টে নয়া এই স্তর বিন্যাস করা হয়েছে। সেখানে সব দেশের নামই আছে। কোন দেশ তাঁদের জন্য কতটা নিরাপদ, সে সম্পর্কে সময়োচিত একটা স্বচ্ছ ধারণা তৈরি করতেই এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে বলেই তাদের দাবি।

একই দেশের মধ্যে বিভিন্ন জায়গা সম্পর্কেও নিরাপত্তা সংক্রান্ত আলাদা আলাদা এবং স্পষ্ট নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে ওই তালিকায়।

সৌদি ভ্রমণে মার্কিন নাগরিকদের সতর্কতা
রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর মঙ্গলবার তাদের নাগরিকদের সৌদি আরবে সফরের বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছে। দেশটিতে ভ্রমণে বিভিন্ন ধরনের ঝুঁকি বিবেচনা করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সন্ত্রাসী হামলা ও ইয়েমেন থেকে বিদ্রোহী সংগঠনগুলোর পেণাস্ত্র হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করেই সৌদি আরবে সফরের ওপর এমন সতর্কতা জারি করেছে ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকার।

মাত্র দুই সপ্তাহ আগেই ইয়েমেন থেকে হাউছি বিদ্রোহীরা সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের কিং খালেদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ল্য করে মিসাইল নিক্ষেপ করে। যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র সৌদির তরফ থেকে দাবি করা হয় যে, নির্দিষ্ট লক্ষ্যে হামলা চালানোর আগেই তারা ওই ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করে দিয়েছে।

হাউছি বিদ্রোহীরা বলছে, ইয়েমেনে বেসামরিক নাগরিকদের ওপর সৌদি আরবের বিমান হামলার জবাব দিতেই তারা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে; কিন্তু ওই হামলায় রিয়াদে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। সৌদির নিরাপত্তা বাহিনী পেণাস্ত্রটিকে প্রতিহত করতে সম হয়েছে।

মার্কিন দূতাবাসের ওয়েবসাইটের এক সতর্ক বার্তায় স্টেট ডিপার্টমেন্টের তরফ থেকে বলা হয়েছে। রিয়াদ, জেদ্দা, দাহরানসহ সৌদির গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা বেড়েই চলেছে। যেকোনো সময় কোনো ইঙ্গিত না দিয়েই এ ধরনের হামলা চালানো হতে পারে।

ইসলামিক স্টেটের মতো গোষ্ঠীগুলো সৌদি ও পশ্চিমা দেশগুলোর মসজিদ এবং অন্যান্য ধর্মীয় স্থানে হামলা চালাচ্ছে। তাই যেকোনো স্থানে সফরের ক্ষেত্রে সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ads

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.