ads

ইংরেজি নববর্ষের দিন ভোরে টুইটার বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মিথ্যা তথ্য দেয়ার অভিযোগ এনে পাকিস্তানকে সামরিক সহায়তা বন্ধের হুমকি দেন। পরে পররাষ্ট্র দফতর থেকে সেই সাহায্য বন্ধের ঘোষণা আসে।
ইংরেজি নববর্ষের দিন ভোরে টুইটার বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মিথ্যা তথ্য দেয়ার অভিযোগ এনে পাকিস্তানকে সামরিক সহায়তা বন্ধের হুমকি দেন। পরে পররাষ্ট্র দফতর থেকে সেই সাহায্য বন্ধের ঘোষণা আসে।

যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান গোয়েন্দা তথ্য বিনিময় স্থগিত

নয়া দিগন্ত অনলাইন

যুক্তরাষ্ট্রকে মাঠ পর্যায় থেকে প্রাপ্ত গোয়েন্দা তথ্য দেয়া বন্ধ করে দিয়েছে পাকিস্তান। এটিকে ওয়াশিংটনের সাথে পাকিস্তানের সামরিক-সহযোগিতা স্থগিতের প্রাথমিক ইঙ্গিত মনে করা হচ্ছে। এতে আফগানিস্তানে চলমান মার্কিন যুদ্ধ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। ইংরেজি নববর্ষের দিন ভোরে টুইটার বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মিথ্যা তথ্য দেয়ার অভিযোগ এনে পাকিস্তানকে সামরিক সহায়তা বন্ধের হুমকি দেন। পরে পররাষ্ট্র দফতর থেকে সেই সাহায্য বন্ধের ঘোষণা আসে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রের বরাতে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কোন্নয়নের গোপন বৈঠক চলমান থাকার খবর দেয়া হলেও, ইসলামাবাদের কর্মকর্তারা গোয়েন্দা তথ্য বিনিময় বন্ধ করে দেয়ার কথা জানালেন। পাকিস্তান আফগান সীমান্তবর্তী অঞ্চল থেকে সংগৃহীত গোয়েন্দা তথ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে সামরিক সহযোগিতা দিয়ে আসছিলো।

পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খুররম দস্তগীর খান চলতি সপ্তাহে জানিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সবধরণের সামরিক ও প্রতিরক্ষামুলক সম্পর্ক স্থগিত করা হয়েছে। তবে এর বিস্তারিত সম্পর্কে তিনি সেসময় কিছুই জানাননি।

আজ শুক্রবার পাকিস্তানের সামরিক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তারা সহযোগিতা দেয়া বন্ধ করেছেন। ইসলামাবাদের ওই সিদ্ধান্তের কারণে এখন থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে গোয়েন্দা তথ্যের জন্য আকাশ থেকে পর্যবেক্ষণ ও যোগাযোগ ব্যবস্থায় প্রবেশ করে পাওয়া তথ্যের ওপর নির্ভর করতে হবে।

পাকিস্তানের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পাকিস্তানের বিস্তৃত আওতার মধ্যে থাকা বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্য (যেমন: পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে ধরা পড়া সন্দেহভাজন আফগান তালেবান) থেকে শুরু করে তাদের গোয়েন্দাদের নিজস্ব কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে সংগৃহীত তথ্য যুক্তরাষ্ট্রকে সরবরাহ করা হতো।

ওই কর্মকর্তারা জানান, পাকিস্তানের তরফ থেকে তথ্য দেয়া বন্ধ করা হলেও যুক্তরাষ্ট্র চাইলে তাদের নিজস্ব প্রক্রিয়ায় তথ্য সংগ্রহ অব্যাহত রাখতে পারবে।

তারা বলেন, আফগানিস্তান সীমান্তে পাকিস্তানের ভিতরে যুক্তরাষ্ট্র ড্রোন উড়িয়ে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ করতে পারবে যুক্তরাষ্ট্র। তবে কোনো ড্রোনই ১০০ শতাংশ নির্ভুলভাবে তথ্য সংগ্রহ করতে পারে না।

ইসলামাবাদে কর্মরত মার্কিন দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এখনও ইসলামাবাদের কাছ থেকে গোয়েন্দা তথ্য না পাওয়ার বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো তথ্য পায়নি যুক্তরাষ্ট্র। তবে পাকিস্তান এ ধরণের পদক্ষেপ নিতে পারে বলে প্রস্তুতি রয়েছে তাদের। চলতি সপ্তাহে ট্রাম্প প্রশাসনের পররাষ্ট্র দফতরের আন্ডার সেক্রেটারি স্টিভ গোল্ডস্টেইন বলেন, আমরা পাকিস্তানকে আলোচনার টেবিলে চাই আর প্রত্যাশা করি তারা আমাদের সহযোগিতা করবে।

ads

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.