জা ম্বি য়া র রূ প ক থা

কালুলু খরগোশের টাকার চাষ

রূপান্তর : হাসান হাফিজ

(গত দিনের পর)
সৈন্যরা অতি কষ্টে খরগোশের বাসার ভিতর উঁকি দেয়। দেখে মরা একটা খরগোশ পড়ে আছে। কম্বল দিয়ে সারা শরীর ঢাকা।
সৈন্যরা সরল বিশ্বাসে মেনে নেয় কালুলুর বউয়ের কথা। তারা আফসোস করে। ফিরে গিয়ে মোড়লকে সবিস্তারে ঘটনা জানায়। মোড়লও জেনে খুব দুঃখিত হলেন। নিজেই চলে গেলেন কালুলুর বাড়িতে সান্ত্বনা দিতে। সাথে নিলেন এক বস্তা টাকা। কালুলুর বউকে তিনি সমবেদনা জানালেন। বললেন, তোমার যে প্রচণ্ড ক্ষতি হলো, তা কখনোই পূরণ হওয়ার নয়। এই সামান্য কিছু টাকা তোমাকে দিচ্ছি। আপাতত এ দিয়ে তুমি সংসার চালিয়ো।
মোড়ল চলে গেলেন। কালুলুর বউয়ের আনন্দ আর ধরে না। হঠাৎই শূন্যের মাঝার কত টাকা এসে গেল হাতে। সত্যি, কালুলুর চোখাবুদ্ধির তারিফ করতেই হয়। (চলবে)

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.