দৃষ্টিপাত : অসময়ের আকুল আবেদন

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আপনার প্রতি আমার আকুল আবেদন, ‘বাঁচার তাগিদে হাত বাড়িয়েছি। চন্দ্রঘোনা কর্ণফুলী কাগজকলে সুদীর্ঘ ১৫ বছর অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সাথে চাকরি করার পর ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে সামরিক আদালতে অন্যায়ভাবে আমার চাকরি চলে যায়। তাই আজ আমি নিঃস্ব, দুস্থ ও অসহায় ও সহায়-সম্বলহীন। আমার স্থাবর-অস্থাবর বাড়িঘর ও জায়গা সম্পত্তি ও টাকা কিছুই নাই। একমাত্র চাকরিই ছিল আমার জীবিকার উৎস। চাকরি হারিয়ে পথে বসেছি। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে আপনার প্রতি একান্ত আবেদন, আমার ছেলেমেয়েসহ পরিবারকে বাঁচান। আমার বিবাহযোগ্য দু’টি মেয়ে থাকলেও আজো বিয়ে দিতে পারিনি শুধু অর্থাভাবে। ছেলেমেয়েদের অর্থাভাবে শিক্ষার পথ বন্ধ হয়ে গেছে। স্ত্রী অসুস্থ দীর্ঘ সময় ধরে; কিন্তু অর্থাভাবে চিকিৎসা করাতে পারছি না। আমি আরো নানা সমস্যায় জর্জরিত।
আপনার সুনজর লাভের জন্য বগুড়ার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কাগজপত্রগুলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দফতরের মুখ্য সচিবের কাছে পাঠিয়েছি; কিন্তু আজো জানতে পারিনি এ ব্যাপারে কোনো কিছু। দু’ বছর অতিবাহিত হয়ে গেছে ইতোমধ্যে। গত বছর পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিনে গণভবনে গিয়েছিলাম। প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতের পর আমার কাগজপত্রগুলো পিএসের কাছে জমা দিয়েছি; কিন্তু আজ পর্যন্ত কিছু জানি না। আপনার দয়ার হাত বাড়িয়ে দিলে বাঁচার পথ খুঁজে পাবো।
এ এম মাহমুদ হোসেন
মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন
ফরিদ কমিশনারের পার্শ্ববর্তী বাড়ি
হটু মিয়া লেন, উত্তর কাটনারপাড়া
সদর, বগুড়া

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.