খানসামায় একসাথে ৪ গরুর মৃত্যু : দিশেহারা গৃহস্থ

খানসামা (দিনাজপুর) থেকে সংবাদদাতা

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার দামুশাহ পাড়ায় এক গৃহস্থের চারটি গাভী আলুর গাছ খেয়ে মারা গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত গৃহস্থ নজরুল ইসলাম প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গোয়াল ঘরে গাভীগুলোকে রেখে ধানের খড় ও আলুর গাছ খেতে দেন। এরপর ঘণ্টাখানেক পর হঠাৎ পাঁচটি গরুই ছটফট করতে থাকে এবং একটি তৎক্ষণাৎ মারা যায়। পরে পর্যায়ক্রমে এক এক করে আরো তিনটি গাভী মারা যায়। নজরুল ইসলাম গরুর দুধ বিক্রি করে ও পরের বাড়িতে কামলা দিয়ে অতি কষ্টে সংসার চালান। তার আয়ের উৎস এই পাঁচটি গাভী। গাভীর দুধ বিক্রি ও হাল চাষ করে সংসারের চাহিদা মেটাতেন তিনি। স্থানীয় পশু চিকিৎসকরা জানিয়েছেন খাদ্যে বিষক্রিয়ার কারণেই গাভীগুলো মারা গেছে।
তার ছেলে শাহিনুর রহমান জানায়, তার বাবা গোয়াল ঘরে ধানের খড় আর আলুর গাছ গাভীগুলোকে খেতে দেয়ার পর এ ঘটনা ঘটে। এর আগেও গাভীগুলোকে তিনি খড় ও আলুর গাছ খেতে দিয়েছিলেন।
স্থানীয় অনেকে জানান, কয়েক দিন আগেও পাশের পাড়ায় আলুর গাছ খেয়ে দুটি গরু মারা গেছে।
গাভীগুলোর মৃত্যু নিশ্চিত করেছেন পশু চিকিৎসক মোহাম্মদ আমিনুল, এআই টেকনিশিয়ান, পশু পল্লী চিকিৎসক কৃষ্ণ রায়। তারা বলেন, খাদ্যে বিষক্রিয়ার কারণেই গাভীগুলো মারা গেছে। কেউ বিষ খাওয়ায়নি। শীতে কীটনাশক স্প্রে করা আলুর গাছ খাওয়ানোর ফলেই গরুগুলো মারা গেছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.