রোহিঙ্গা ইস্যুতে সু চির কাছে জাপানের উদ্বেগ

রয়টার্স

জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী টারো কোনো মিয়ানমারে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর বিষয়ে গভীর উদ্বেগের কথা দেশটির নেত্রী অং সান সু চির কাছে তুলে ধরেছেন। শুক্রবার মিয়ানমারের রাজধানী নেপিদোতে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এই উদ্বেগ তুলে ধরেন জাপানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। কিয়োডো বার্তা সংস্থা এ খবর জানিয়েছে।
উদ্বেগ জানানোর পাশাপাশি বাংলাদেশে পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসনে মিয়ানমারকে আর্থিক সহযোগিতার ঘোষণা দিয়েছে জাপান। জরুরি সহযোগিতা হিসেবে জাপান সরকার মিয়ানমারকে প্রায় ৩০ লাখ ডলার দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।
গত বছরের আগস্টে মিয়ানমারের রাখাইনে নিরাপত্তা বাহিনীর তল্লাশি চৌকিতে হামলা চালায় কথিত আরসা বিদ্রোহীরা। জবাবে ২৫ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত অঞ্চলে অভিযান জোরদার করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। স্থানীয় বৌদ্ধদের সহায়তায় সেখানে বহু বাসিন্দাকে হত্যা ও ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়। ত্রাণ সংস্থাগুলোর হিসাবে এই পর্যন্ত অভিযানের কারণে প্রতিবেশী বাংলাদেশে পালিয়ে গেছে সাড়ে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা নাগরিক। জাতিসঙ্ঘ ওই অভিযানকে জাতিগত নিধনের প্রকৃষ্ট উদাহরণ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। এতদিন মিয়ানমার ও দেশটির সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের নিপীড়নের কথা অস্বীকার করলেও বুধবার সেনাপ্রধান ১০ রোহিঙ্গাকে হত্যায় চার সেনা সদস্যের জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন।
গত ২৩ নভেম্বর আলোচনার পর বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর জন্য একটি ‘অ্যারেঞ্জমেন্ট’ স্বাক্ষর করেন। এরপর প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়াটি দেখাশোনার জন্য ১৯ ডিসেম্বর যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করা হয়। এর প্রথম সভা হবে ১৫ জানুয়ারি। ওই দিন রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর জন্য মাঠপর্যায়ে কাজ করার জন্য একটি ‘ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জমেন্ট’ চুক্তিস্বাক্ষর করবেন দুই দেশের দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.