উন্নয়নে মানবসম্পদকে কাজে লাগাতে হবে : ইউজিসি চেয়ারম্যান

চট্টগ্রাম ব্যুরো

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান বলেছেন, দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদ হলো মানবসম্পদ। বাংলাদেশ এখন অনেক ক্ষেত্রে স্বয়ংসম্পূর্ণ। আমাদের খনিজসম্পদ নেই তবে মানবসম্পদকে কাজে লাগিয়ে আমাদের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এগোতে হবে। বিশ্ব এখন প্রযুক্তির হাতে সুতরাং এ সেক্টরে দক্ষতা বাড়াতে হবে। গবেষণা ও উদ্ভাবনে আমাদের আরো বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। গতকাল সাদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের পুরকৌশল বিভাগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত দুই দিনব্যাপী ‘রিসার্চ অ্যান্ড ইনোভেশন ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (আইসিআরআইসিই)’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তৃতা রাখছিলেন।
ইনস্টিটউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইইবি) চট্টগ্রাম কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে সাদার্ন ইউনিভার্সিটির পুরকৌশল বিভাগের উপদেষ্টা ও চুয়েটের সাবেক ভিসি প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মোজাম্মেল হক সভাপতিত্ব করেন। সম্মেলনের প্রথম দিনে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাদার্ন ইউনিভার্সিটির ভিসি প্রফেসর ড. মো: নুরুল মোস্তফা, সাদার্ন ইউনিভার্সিটির উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর সরওয়ার জাহান ও আইইবি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সাদেক মোহাম্মদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাদার্ন ইউনিভার্সিটির বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত প্রোভিসি ও কনফারেন্স সেক্রেটারি অধ্যাপক (প্রকৌশলী) এম আলী আশরাফ, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. শরীফুজ্জামান প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবদুল মান্নান বলেন, আমরা সবাই অফিসে বসে এসি রুমে কাজ করতে আগ্রহী, কেউ ফিল্ড ওয়ার্ক করতে চাই না। তবে এ ধরনের মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।
সাদার্ন ইউনিভার্সিটির উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর সরওয়ার জাহান বলেন, শিক্ষার্থীদের গুণগত ও বিশ্বমানের শিক্ষায় গড়ে তুলতে কাজ করছে সাদার্ন ইউনিভার্সিটি। শিক্ষার মানোন্ননে ইউজিসি ও বিশ্বব্যাংকের প্রজেক্ট হেকেপ এ সফলতা, জাতিসঙ্ঘের সহযোগী সংস্থা অ্যাকাডেমিক ইম্পেক্টের সদস্য হয়ে জাতিসঙ্ঘের প্রণীত ১০টি এজেন্ডা বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন গবেষণামূলক কাজে সাদার্ন এগিয়ে যাচ্ছে।
দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে তিনটি কি-নোট সেশন ও সাতটি টেকনিক্যাল সেশন রয়েছে। প্রথম দিনে কি-নোট স্পিকার ছিলেন ভারতের আইআইটি খরগপুরের পুরকৌশল বিভাগের সাবেক প্রধান প্রফেসর ড. বিবি পান্ডে। তিনি বিটুমিনাস ও কনক্রিট পিগমেন্ট ডিজাইনের ওপর বক্তব্য রাখেন এবং এ ধরনের রাস্তার স্থায়িত্ব নিয়ে করণীয় বিষয়ে ইঞ্জিনিয়ারদের পরামর্শ দেন।
সম্মেলনে স্ট্র্যাকচারাল, আর্থকোয়েক, জিওটেকনিক্যাল অ্যান্ড ফাউন্ডেশন, ট্রাফিক অ্যান্ড ট্রান্সপোর্টেশন, ওয়াটার রিসোর্সেস, ফ্লাড কনট্রোল অ্যান্ড মিটিগেশন, এনভায়রনমেন্টাল, মেটোরিয়ালস ইঞ্জিনিয়ারিং, কনস্ট্রাকশন অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট, আরবানাইজেশন অ্যান্ড বিল্ড এনভারনমেন্ট, অ্যাডভান্সেস ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এডুকেশন ইত্যাদি বিষয়ে ৪৪টি গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন ও আলোচনা করা হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.