সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের বই উৎসব  :  নয়া দিগন্ত
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের বই উৎসব : নয়া দিগন্ত

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের উৎসবে ছয় সহস্রাধিক শিক্ষার্থীকে পুরস্কার প্রদান

গতকাল শুক্রবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তনসংলগ্ন মাঠে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, পুরস্কারপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী ও আমন্ত্রিত অতিথিরা উৎসবমুখর পরিবেশে নানান রঙের বেলুন আকাশে উড়িয়ে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র পরিচালিত দেশভিত্তিক উৎকর্ষ কার্যক্রমের আওতায় ঢাকা মহানগরীর স্কুলপর্যায়ের ২০১৭ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রছাত্রীদের দুই দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য পুরস্কার বিতরণী উৎসব উদ্বোধন করেন।
গ্রামীণফোনের সহযোগিতায় বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র আয়োজিত ঢাকা মহানগরীতে দুই দিনব্যাপী পুরস্কার বিতরণী উৎসবে তিনটি পর্বে ৯০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছয় হাজার ১৯৪ জন শিক্ষার্থীর হাতে পুরস্কার দেয়া হবে। গতকাল সকালে পুরস্কার বিতরণী উৎসবের প্রথম পর্বে ৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২১০২ জন ছাত্রছাত্রী পুরস্কার নিয়েছে। দ্বিতীয় পর্বে পুরস্কার গ্রহণ করেছে ২৯টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২০৭৫ জন ছাত্রছাত্রী। আজ শনিবার বিকেল ৩টায় ঢাকা মহানগরীর ৩১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২০১৭ জন ছাত্রছাত্রী অতিথিদের কাছ থেকে পুরস্কার গ্রহণ করবে।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্যসচিব ও বিশিষ্ট কবি ড. কামাল আবু নাসের চৌধুরী, জনপ্রিয় লেখক, কলামিস্ট এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল, কথাসাহিত্যিক ও দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, বিশিষ্ট নাট্য অভিনেতা, অনুবাদক ও লেখক খায়রুল আলম সবুজ, নৌপরিবহন সচিব ও বিশিষ্ট কবি আবদুস সামাদ, বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক ও দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকার সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক, গ্রামীণফোন লিমিটেডের স্টেকহোল্ডার রিলেশনস, করপোরেট অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক এস এম রায়হান রশীদ এবং বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানের শুরুতে অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে আগত পুরস্কারপ্রাপ্ত ছাত্রছাত্রীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, তোমরা যারা বই পড়ে পুরস্কার পাচ্ছো, আমি বিশ্বাস করি তাদের মানসিক শক্তি অন্যদের তুলনায় অনেক উন্নত। তিনি আরো বলেন, সর্বোপরি বইগুলো পড়ে তোমরা অনেক মজা পাচ্ছো এবং তোমাদের সময় অনেক ভালো কাটছে। যারা জীবনের পুরোটা সময় আনন্দে কাটাতে পারে তারাই সেরা মানুষ আর এক মাত্র বই-ই পারে মানুষের জীবন আনন্দে ভরিয়ে তুলতে। বিজ্ঞপ্তি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.