আজহারের ওপর থেকে সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

নয়া দিগন্ত অনলাইন

সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারের হায়দরাবাদ ক্রিকেট সংস্থার নির্বাচনে দাঁড়াতে আর কোনো বাধা রইল না। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে, আজহারের উপর আর কোনো বিধিনিষেধ নেই। বোর্ডের তরফ থেকে তার যা প্রাপ্য তিনি তাই পাবেন। সুতরাং সাবেক অধিনায়কের ওপর থেকে যাবতীয় বাধার পর্দা সরিয়ে দিল স্বয়ং ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। নিঃসন্দেহে আজহারের জন্য দিনটা স্মরণীয়।

ভারতীয় দলে থাকাকালীন আজহারের উপর বুকিদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দোষ চাপানো হয়েছিল। বলা হয়েছিল, ভারতীয় ক্রিকেটের বেশ কিছু ম্যাচ তার হস্তক্ষেপে ফিক্সিং হয়। যার ফলে তাকে যাবতীয় সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করেছিল ভারতীয় বোর্ড। এমনকি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা বা আইসিসি তাকে নির্বাসিত করেছিল। জানিয়ে দিয়েছিল, তিনি আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যোগ দিতে পারবেন না। পরবর্তীকালে তার ওপর থেকে বোর্ড কর্তারা বিধিনিষেধ তুলে নিলেও পুরোপুরি পর্দা সরেনি। অবশেষে আজহার-বোর্ড দ্বন্দ্বে সমাপ্তি ঘটল। বিসিসিআই জানিয়ে দিয়েছে, আর পাঁচজন ক্রিকেটারের মতোই বোর্ড থেকে সব সুযোগ সুবিধা পাবেন সাবেক ভারত অধিনায়ক।

গত জানুয়ারিতে হায়দরাবাদ ক্রিকেট সংস্থার নির্বাচনে দাঁড়াতে গিয়েছিলেন আজহার। কিন্তু বোর্ডের পক্ষ থেকৈ থেকে তাকে ছাড়পত্র দেয়া হয়নি। ফলে অন্ধ্রপ্রদেশ হাই কোর্টের অ্যাডহক কমিটির চেয়ারম্যান প্রকাশ জৈন বোর্ডের কাছে চিঠি দিয়ে জানতে চেয়েছিলেন, কেন আজহারকে তারা ছাড়পত্র দিতে দ্বিধা করছেন। অবশেষে উত্তর দিল বোর্ড। বোর্ডের আইন উপদেষ্টার প্রধান আদর্শ সাক্সেনা চিঠি লিখে জানিয়ে দিয়েছেন, আজহারের উপর আর কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। তারা আজহারকে যাবতীয় দোষারোপ থেকে মুক্তি দিয়েছেন।

“২০১৩-তে অন্ধ্রপ্রদেশের হাই কোর্ট যে রায় দিয়েছিল তার বিপক্ষে আমরা ঠিক করেছিলাম পিটিশন করা হবে। হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ নেব। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত থেকে পরে সরে এসেছি। ফলে এখন আজহারের উপর আমাদের কোনো বিধি নিষেধ রইল না। তিনি এখন হায়দরাবাদ ক্রিকেট সংস্থার নির্বাচনে দাঁড়াতেই পারেন। লোধা কমিটির সুপারিশ মেনে তিনি দাঁড়াতে চাইলে আমাদের পক্ষ থেকে কোনো বাধা থাকবে না।”

চিঠি লিখে প্রকাশ জৈনকে একথা জানিয়েছেন আদর্শ সাক্সেনা। অতএব আজহার এখন পুরোপুরি মুক্ত। এদিকে, সম্প্রতি হায়দরাবাদ ক্রিকেট সংস্থার বৈঠকে আজহারকে ঢুকতে বাধা দেয়া হয়েছিল। সংস্থার কয়েকজন সদস্য তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন বলেও অভিযোগ তুলেছিলেন তিনি।

এদিন আজ্জু জানিয়ে দিলেন, সংস্থার সেই ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে চলেছেন তিনি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.