চরভদ্রাসনে ৩০০ মিটার পদ্মা রক্ষা বাঁধ বিলীন

চরভদ্রাসন (ফরিদপুর) সংবাদদাতা

ফরিদপুরের চর ভদ্রাসন উপজেলা সদরের এমপি ডাঙ্গী গ্রামের প্রধান সড়ক ঘেঁষে পদ্মা নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের ৩০০ মিটার বাঁধ গত শুক্রবার সকালে প্রায় পুরোটাই ভাঙনে বিলীন হয়ে গেছে। উক্ত বাঁধ প্রকল্প ঘেঁষে পদ্মা নদীর পাড়ে গভীর পানি থাকায় দুই মাস ধরে মালামালবাহী বিভিন্ন কার্গো পণ্য ওঠানামা করে বন্দরে। শুক্রবার ভোর রাতে জিও ব্যাগ ডাম্পিং করা বাঁধ প্রকল্প এলাকাসহ প্রায় ৮০ ফুট চওড়া করে বড় বড় ফাটল নিয়ে একের পর এক জমি পদ্মায় বিলীন হয়ে যায়। এতে ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) প্রায় চার কোটি টাকার ভাঙন রোধ প্রকল্প বিলীন হয়ে গেছে।
এ ব্যাপারে শুক্রবার বিকেলে ফরিদপুর পাউবোর বিভাগীয় প্রকৌশলী জহির উদ্দিন বলেন, ওই এলাকার বাঁধটি ভেঙে যাওয়ারই কথা। কেননা প্রকল্পটি ছিল অস্থায়ী বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প। এটি স্থায়ী বাঁধ প্রকল্প ছিল না।
জানা যায়, পদ্মার ভাঙন থেকে রক্ষার জন্য উপজেলা সদরে এমপি ডাঙ্গী গ্রামের প্রধান সড়ক ঘেঁষে গত দুই বছরে প্রায় চার কোটি টাকা ব্যয়ে পদ্মার তীর সংরক্ষণ বাঁধ নির্মাণ করে ফরিদপুর পাউবো। এ প্রকল্পে তিন দফায় মোট ২৬ হাজার ১৩০টি জিও ব্যাগ পদ্মা পাড়ে ডাম্পিং করা হয়। চলতি শুষ্ক মওসুমে পদ্মা নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে পানি শুকিয়ে যাওয়ার কারণে ওই ভাঙন রোধ প্রকল্প ঘেঁষে গভীর পানিতে মালামাল বহনকারী কার্গো ভিড়ে বন্দর গড়ে তুলেছিল।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী নূর মোহাম্মদ বলেন, আমরা কয়েক দফায় পদ্মা নদীর ঘাট মালিককে ট্রাক চলাচল ও কার্গো বন্ধের জন্য নোটিশ দিয়েছি। এমনকি ঘাট ইজারাদার বাবুল শিকদারকে ডেকে এনে নিষেধ করার পরও ট্রাক ও কার্গো চলাচল বন্ধ হয়নি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.