আগডুম বাগডুম কবিতা

বিদ্বানের সম্মান
সৈয়দ মাশহুদুল হক

বইকে তোমার বন্ধু বানাও
বইকে ভাবো মিতা
জ্বলবে তবেই জ্ঞানের বাতি
যা যাবে না বৃথা।

বই পেলেই নেড়ে দেখো
চোখ রাখো তার পাতায়
বর্ণে গড়া জ্ঞানের কথা
গুঁজে রাখো মাথায়।

জমিজমা ভাগ করা যায়
ভাগ করা যায় টাকা
জ্ঞানই কেবল নিজের থাকে
নিজ মগজে ঢাকা।

ধনদৌলত আজ আছে তো
কালকে হবে পর
বন্ধু হয়ে বিদ্যা কেবল
থাকবে জীবনভর।

রাজার সম্মান নিজ রাজ্যে
অন্য রাজ্যে নয়
বিদ্বানে পায় বিশ্বজুড়েই
মান-সম্মান বিনয়।

সব কিছুতেই ভাগ পাবে তো
থাকলে গোষ্ঠী-জ্ঞাতি
বিদ্যা তোমার কেউ নেবে না
থাকলে পাবে খ্যাতি।

ভাল্লাগে না খোকন সোনার
শশধর চন্দ্র রায়

খোকন সোনা স্বপ্ন দেখে
খেলবে খেলার মাঠে,
পড়ার সময় পড়বে পড়া
মন দেবে নিজ পাঠে।

ঘরে বসে কম্পিউটার গেম
দাবা-লুডু খেলা,
ভাল্লাগে না খোকন সোনার
কাটে না তার বেলা।

ভাল্লাগে না খেলার সময়
প্রাইভেট-কোচিং যেতে,
ভাল্লাগে না খোকন সোনার
থাকতে পড়ায় মেতে।

স্বপ্নগুলো ভেসে বেড়ায়
হারায় অচিন দেশে,
ভাল্লাগে না খোকন সোনার
মন ওঠে না হেসে।

সেরা জাদু
বাতেন বাহার

কিছু কিছু ছড়া কিছু কিছু গান
শিশুদের মনে সুখ অফুরান।
কিছু কিছু ফুল কিছু কিছু পাতা
শিশুদের প্রিয় সুবাসিত ছাতা।
কিছু কিছু মাঠ কিছু কিছু বন
শিশুদের মনে ফুলের ভুবন।

কিছু কিছু কবি কিছু কিছু ছবি
শিশুদের মনেÑ নজরুল-রবি।
কিছু কিছু পথ কিছু কিছু মত
শিশুদের মনে প্রিয় মনোরথ।
কিছু কিছু বাণীÑ নয় শুধু বাণী
পৃথিবীর সেরা বিস্ময় জানি।
কিছু কিছু দাদু নয় শুধু দাদু
শিশুদের মনে আঁকে সেরা জাদু।

ধোঁকা
মুহাম্মাদ হাবীবুল্লাহ হাসসান

কেউ বা দিবে লুভিয়ে
স্বর্ণ অতীত ভুলিয়ে
কেউ বা হঠাৎ ধমকিয়ে
কিংবা পিলে চমকিয়ে

তবু কেন নেবার তরে
আমরা আছি মুখিয়ে?
মুখিয়ে
মুখিয়ে?

রুচি-নীতির পাহাড় তবে
গেল কি হায়! তলিয়ে?
তলিয়ে
তলিয়ে?

জন্মদিনে
খোন্দকার শাহিদুল হক

আজ পারিজার জন্মদিনে
ময়না-টিয়ার সাথে
হাজার গানের পাখি এলো
জোছনাভরা রাতে।
টুনটুনিরা গান ধরেছে
দোয়েল নাচে ডালে
বুলবুলিটা আলতো করে
চুমা দিলো গালে।
বলল সবাই ও পারিজা
অনেক ভালো তুমি
তাই তো তোমার জন্মদিনে
আদর দিয়ে চুমি।
পারিজাকে পেয়ে সবাই
খুশি মনে নাচে
এমন খুশির খবর বল
আর কি কোথাও আছে?

শীত
আবদুল ওহাব আজাদ

সবুজ গাঁয়ে
পায়ে পায়ে
শীতের আগমনে
নাড়ার আগুন
জ্বালায় দ্বিগুণ
কিশোর জনে জনে।
সাত সকালে
সন্ধ্যাকালে
কাঁথায় ঢাকা দেহ।
এমনি করে
যাবে কদিন
বলতে পারো কেহ!

ঝরাপাতা
শামীম খান যুবরাজ

ঝরাপাতা ঝরো
ঝুর ঝুর করো
উড়ে গিয়ে
দূরে গিয়ে
ঘুরে ঘুরে
পড়ো।

বাতাসের ঝাঁপটায়
ঘুড়ি হয়ে যাও
জলে পড়ে হয়ে যেও
পিঁপড়ের নাও।

ঝরাপাতা ভাইÑ
এসো এসো
উড়ে উড়ে
আকাশে হারাই।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.