ফুলে ফুলে বসন্ত

রঙের ফিচার
শওকত আলী রতন

ঋতুরাজ বসন্তের আগমন ঘটে শীতের পরই। গাছে গাছে ফুটে বিভিন্ন রঙের ফুল। প্রকৃতি সাজে নবরূপে। বাতাসে ভেসে বেড়ায় ফুলের সুবাস। প্রকৃতির এ পরিবর্তনের সাথে সাথে মানুষের মনেও দোলা দিয়ে যায় বসন্ত। ফাল্গুনের প্রথম দিনটিতে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় বসন্তকে। এ মাসেই রয়েছে আরো দু’টি দিবস একটি হচ্ছে ভালোবাসা দিবস, অন্যটি ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

পয়লা ফাল্গুন : বসন্তের প্রথম দিনটিই হলো পয়লা ফাল্গুন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের আয়োজনে দিনব্যাপী চলে বসন্ত উৎসব। নাচে গানে বরণ করে নেয়া হয় ফাল্গুনের প্রথম দিনটিকে। সকাল থেকে মানুষের পদচারণায় মুখরিত হয় ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় ও আশপাশের বেশ কয়েকটি এলাকা। বাসন্তি রঙের শাড়ির সাথে তরুণীদের মাথায়, খোঁপায় ও গলায় শোভা পায় রঙ-বেরঙের ফুল। আবার কেউ কেউ গলায় ফুলের মালা দিয়ে এ দিনটি আনন্দ উৎসবের মধ্যে দিয়ে পালন করে থাকেন। ফুল ফাল্গুনের অন্যতম অনুষঙ্গ। দিনটিতে ফুলের সাজসজ্জায় নিজেকে রাঙিয়ে তুলতে পারেন সহজেই।
ভালোবাসা দিবস : দিনক্ষণ ঠিক করে তো আর ভালোবাসা যায় না। ভালোবাসা প্রতিদিনের, প্রতি মুহূর্তের জন্য। তার পরও ১৪ ফেব্রুয়ারি সারা বিশ্বে পালন করা হয় বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। তাই এ দিনটিতে অনেকেই ভালোবাসার প্রিয় মানুষটিকে উপহারসামগ্রী দিয়ে স্মরণীয় করে রাখতে চান। আমাদের দেশে ভালোবাসা প্রকাশের সবচেয়ে প্রচলিত ও প্রাচীন অনুষঙ্গ হচ্ছে ফুল। ফুলের প্রতি বরাবরই মানুষের রয়েছে অন্য রকম ভালোবাসা। তাই আপনার প্রিয় মানুষটিকে একগুচ্ছ গোলাপ বা অন্য যেকোনো ফুল উপহার হিসেবে দিতে পারেন। আপনার পছন্দের যেকোনো ডিজাইনের তোড়া অর্ডার দিলে দোকানি তা বানিয়ে দিতে পারবে। ভালোবাসা দিবসে ফুলের সুবাসের মতো ভরে উঠুক আমাদের এ ধরা।
ভাষা দিবস : আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রধান উপকরণ হলো ফুল। এ দিনটিতে বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের বীর শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এ দিন শ্রদ্ধা জানানোর জন্য সর্ব স্তরের মানুষের ঢল নামে শহীদ মিনারে। ফুলের তোড়া বা গোলাকার রিং বানিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। আমাদের দেশে ২১ ফেব্রুয়ারিতে বিপুল ফুল বিক্রি হয়ে থাকে এবং দামও থাকে একটু চড়া। তিনটি দিবসেই হতে পারে ফুলের ব্যবহার। তবে আমাদের দেশে উৎসব আয়োজনে গোলাপ, রজনীগন্ধা, গাঁদা, জারবেরা, গ্লাডিওলাস ও জিপসি ফুলের বিক্রি বেশি হয়ে থাকে। প্রতিটি গোলাপ ১০-১৫, রজনীগন্ধা ৮-১০, গ্লাডিওলাস ১৫-২০ ও জারবেরা ১০-১৫ টাকায় বিক্রি হয়ে থাকে।
কোথায় পাবেন : ফুলের জন্য প্রসিদ্ধ রাজধানীর শাহবাগ। শাহবাগের মোড়ে বেশ কয়েকটি ফুলের দোকান থাকায় দরদাম করে কেনার সুযোগও রয়েছে। এ ছাড়া আগারগাঁও, কাঁটাবন, এলিফ্যান্ট রোডসহ সব জায়গায়ই কমবেশি ফুল পাওয়া যায়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.