ট্রাম্পের থেকে দূরে দূরে থাকছেন মেলানিয়া? জল্পনা তুঙ্গে
ট্রাম্পের থেকে দূরে দূরে থাকছেন মেলানিয়া? জল্পনা তুঙ্গে

ট্রাম্পের থেকে দূরে দূরে থাকছেন মেলানিয়া? জল্পনা তুঙ্গে

নয়া দিগন্ত অনলাইন

ফের অস্বস্তিতে পড়লেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে বিতর্কিত মন্তব্য করে নয়। স্ত্রী মেলানিয়ার হাত ধরতে গিয়েই ঘটেছে বিপত্তি। ওহাইও রাজ্যে যাওয়ার পথেই ঘটেছে ওই ঘটনা। বিমানে ওঠার আগে স্ত্রীর হাত ধরতে যান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। কিন্তু মেলানিয়া হাত সরিয়ে নেন। ট্রাম্প কয়েকবার চেষ্টা করেন। কিন্তু না পেরে ট্রাম্প অবশেষে দর্শকদের উদ্দেশ্যে হাত নাড়তে থাকেন। কিন্তু এর মধ্যেই ফটোগ্রাফারের ক্যামেরায় সেই দৃশ্য ধরা পড়ে। ভিডিওতে মেলানিয়াকে হলুদ রংয়ের ওভারকোট পরা দেখা গিয়েছে। দুটো হাতই ছিল ওভারকোটের ভিতরে। ট্রাম্প চেয়েছিলেন স্ত্রীর ডান হাত ধরতে। পরে অবশ্য একসঙ্গেই বিমানে ওঠেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় যথারীতি ছবিটি পোস্ট হওয়ার পর ভাইরাল হয়ে যায়। যদিও এমন ঘটনা এবারই প্রথম নয়, আগেও ঘটেছে।

অনেকেই বলছেন, গৃহদাহ শুরু হয়ে গিয়েছে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সংসারে। খবরও রটেছে, ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া স্বামী ট্রাম্পের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখে চলছেন। বছর খানেক আগে এক পর্নো তারকার সঙ্গে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে ওঠার যে অভিযোগ উঠেছে, তারপর থেকেই নাকি এই দূরে দূরে থাকা। সুইজারল্যান্ডের দাভোসে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামে মেলানিয়ার অনুপস্থিতি এই খবরের সত্যতা কিছুটা হলেও প্রমাণ করেছে। আমেরিকার ফার্স্ট লেডির কার্যালয় থেকে ঘোষণাও করা হয়েছিল, দাভোসে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে উপস্থিত থাকবেন মেলানিয়া ট্রাম্প। সেই অনুযায়ী তাঁর দাভোসে পৌঁছানোর কথা। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ফার্স্ট লেডির কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, সময়সূচি আর কিছু কারণে ওয়াশিংটন ডিসিতেই থাকতে হচ্ছে মেলানিয়াকে।

১২ জানুয়ারি মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এক প্রতিবেদনে দাবি করে, এক দশক আগে এক পর্নো তারকার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক তৈরি করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু ওই পর্নো তারকা যাতে বিষয়টি নিয়ে মুখ না খোলেন, সেই জন্য গত বছর আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাসখানেক আগে এক আইনজীবীর মাধ্যমে তাকে ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন ট্রাম্প। প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ২০০৬ সালে পর্নো তারকা স্টেফানির সঙ্গে ট্রাম্পের শারীরিক সম্পর্ক ছিল। যদিও তার এক বছর আগেই মেলানিয়াকে বিয়ে করেন ট্রাম্প।

গত সোমবার ডোনাল্ড ট্রাম্প আর মেলানিয়া ট্রাম্পের ছিল ১৩ তম বিবাহবার্ষিকী। আগের বছরগুলিতে এই দিনটি বেশ আড়ম্বরের সঙ্গে উদ্যাপন করলেও এবার যেন এই দম্পতি কোনোরকমে পার করে দেন দিনটা। ট্যুইটারে আসক্ত ট্রাম্পের কাছ থেকে বিবাহবার্ষিকী উপলক্ষে কোনো ট্যুইট না এলেও এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেই ডেমোক্র্যাটরা সমালোচনায় মুখর হয়েছেন। মেলানিয়ার দূরে দূরে থাকার আরো প্রমাণ মেলে স্বামীর সঙ্গে ফ্লোরিডায় গিয়েও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তার অনুপস্থিতি। পর্নো তারকাকে অর্থ দেয়ার অভিযোগ সংক্রান্ত প্রতিবেদনটি প্রকাশ হওয়ার পরই এই দম্পতি ফ্লোরিডায় যান। আর এরপরই দাভোস সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.