মুসলিম বলে নাজেহাল হলেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভুত ক্রিকেটার
মুসলিম বলে নাজেহাল হলেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভুত ক্রিকেটার

মুসলিম বলে নাজেহাল হলেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভুত ক্রিকেটার

নয়া দিগন্ত অনলাইন

বলা হয় ক্রিকেট ‘জেন্টলম্যানস গেম’৷ কিন্তু ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গ্যালির আচরণে এই উপাধি খোয়াতে চলেছে ২২ গজের দৃষ্টিনন্দন লড়াই৷ কিন্তু ঘরের মাঠেই বর্ণবৈষ্যমের শিকার হলেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত প্রোটিয়া ক্রিকেটার৷

শনিবার ওয়ান্ডারার্সে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার চতুর্থ ওয়ান ডে চলার সময় বর্ণ বৈষম্যের শিকার হলেন দক্ষিণ আফ্রিকার লেগ-স্পিনার ইমরান তাহির৷ গ্যালারি থেকে বর্ণবিদ্বেষমূলক মন্তব্য উড়ে আসে তাহিরকে উদ্দেশ্য করে৷খেলা শেষ হওয়ার পর গ্যালারিতে এসে নির্দিষ্ট ব্যক্তিটিকে চিহ্নিত করে স্টেডিয়াম সিকিউরিটির কাছে অভিযোগ দায়ের করেন তাহির৷

পুরো বিষয়টি সোমবার একটি প্রেস রিলিজের মাধ্যমে স্বীকার করে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা৷ তবে এর আগে ঘটনাটির ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকসহ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতে৷ দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে একটি বিবৃতি জারি করে বলা হয়, ‘সোশ্যাল মিডিয়াতে তাহিরের ভিডিওটি ফুটেজটি ছড়িয়ে পড়ার বিষয়টি আমাদের নজরে রয়েছে৷ জোহানেসবার্গে ভারতের সঙ্গে চতুর্থ ম্যাচ চলাকালীন দর্শকাসনে থাকা এক অপরিচিত ব্যক্তি ইমরান তাহিরকে উদ্দ্যেশ করে বর্ণবিদ্বেষ মন্তব্য করে৷ অভিডুক্ত ব্যাক্তিকে চিহ্নিত করে পুরো বিষয়টি জানিয়ে স্টেডিয়াম সিকিউরিটির কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তাহির৷ অভিযুক্ত ব্যক্তিকে শারীরিক বা মৌখিক কোনো প্রকারের আঘাত পৌঁছানোর কোনো চেষ্টা করেননি ইমরান৷’

ইমরান তাহিরের কাছে অভিযোগ পেয়ে অভিযুক্ত দর্শককে মাঠের বাইরে বের করে দেন মাঠের নিরাপত্তাকর্মীরা৷ আইসিসি-র অ্যান্টি-রেসিজিম কোড অনুসারে এই অপরাধে জড়িত থাকা ব্যক্তিকে স্টেডিয়াম থেকে বের করে দেয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলাও রজ্জু করা হয়৷

খুবই দুর্ভাগ্যজনক হলেও তাহিরকে উদ্দেশ করে এ রকম বর্ণবিদ্বেষমূলক মন্তব্য এবারেই প্রথম নয়৷ তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও বর্ণ বৈষ্যমের শিকার হয়েছিলেন প্রোটিয়া লেগ-স্পিনার৷ ২০১৫ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ায় মানুকা ওভালে তাহিরের উদ্দেশ বর্ণবিদ্বেষ মন্তব্য উড়ে এসেছিল গ্যালারি থেকে৷

বোর্ডার মেডেল জিতলেন স্মিথ
অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা টেস্ট খেলোয়াড় হিসেবে দলের এ্যালান বোর্ডার দক জিতলেন জাতীয় দলের অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। এছাড়া বর্ষসেরা ওয়ানডে খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন মারকুটে ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। গত রাতে মেলবোর্নে জাকজমকপূর্ণ এক অনুষ্ঠানে এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া(সিএ)।

গেল বছর টেস্ট ফরম্যাটে ব্যাট হাতে রানের ফুলঝুড়ি ফুটিয়েছেন স্মিথ। ১১ ম্যাচের ২০ ইনিংসে ব্যাট হাতে ১৩০৫ রান করেন তিনি। টেস্ট ফরম্যাটে বিশ্বে তিনিই ছিলেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। ৩টি হাফ-সেঞ্চুরির সাথে ৬টি সেঞ্চুরিও করেছেন অসি দলপতি। ভারত ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে তিনটি করে সেঞ্চুরি হাকিয়েছেন স্মিথ। এরমধ্যে অ্যাশেজ সিরিজের তৃতীয় টেস্টে ডাবল-সেঞ্চুরি হাকিয়ে ২৩৯ রানে থামেন তিনি।

টেস্ট ফরম্যাটে দুর্দান্ত পারফরমেন্সের কারণেই ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বারের মতো বোর্ডার পদক জিতলেন স্মিথ। ২০১৫ সালে প্রথমবার এই অ্যাওয়ার্ড জিতেছিলেন তিনি। ২৪৬ ভোট পেয়ে এই অ্যাওয়ার্ড জিতেন এই ডান-হাতি ব্যাটসম্যান। ১৬২ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হন ওয়ার্নার। মাত্র ৬ ভোট কম, অর্থাৎ ১৫৬ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন অফ-স্পিনার নাথান লিঁও। ১৯ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ চারবার করে বোর্ডার মেডেল জয় করেছেন অস্ট্রেলিয়ার দুই সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং ও মাইকেল ক্লার্ক।

দ্বিতীয়বারের মত মেডেল জিতে আবেগে আব্লুত স্মিথ বলেন, ‘অবশ্যই আমার জন্য বছরটি দুর্দান্ত ছিলো। ব্যাট হাতে দু’টি সিরিজে আমি শতভাগ সাফল ছিলাম। একইভাবে ভবিষ্যতে আরও ভালো খেলার চেষ্টা করবো এবং সামনে থেকে দলকে নেতৃত্ব দেবো, যাতে দলকে জয়ের অবস্থায় নিয়ে যেতে পারি।’ অস্ট্রেলিয়ার হয়ে এখন পর্যন্ত ৬১ ম্যাচে ২৩টি করে সেঞ্চুরি ও হাফ-সেঞ্চুরিতে ৬০৫৭ রান করেন স্মিথ।

২০১৭ সালে ওয়ানডেতে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন ওয়ার্নার। তবে ওয়ানডেতে বিশ্বে সর্বোচ্চ রানের তালিকায় ১৫স্থানে ছিলেন তিনি। ১৩ ম্যাচে ৬৯১ রান করেছেন এই বাঁ-হাতি ওপেনা। সীমিত ওভারের বর্ষসেরা হন তিনি।

ছোট ফরম্যাটের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ। ৫ ম্যাচে ১৫৮ রান ছিলো এই ডান-হাতি ব্যাটসম্যানের।
২১ বছর বয়সী জে রিচার্ডসন হয়েছেন ব্র্যাডম্যান বর্ষসেরা তরুণ খেলোয়াড়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.