আল্লামা শাহ আহমদ শফী (ফাইল ফটো)
আল্লামা শাহ আহমদ শফী (ফাইল ফটো)
মাওলানা কুদ্দুস বেফাকের মহাসচিব

সংসদের চলতি অধিবেশনে কওমি সনদ পাশ করুন : আল্লামা শফী

নিজস্ব প্রতিবেদক

কওমি মাদরাসার দাওরায়ে হাদীসের সনদকে মাস্টার্সের (ইসলামিক স্টাটিজ ও আরবী) সমমান প্রদান করতে জাতীয় সংসদের চলতি অধিবেশনে আইন পাশ করার দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের (বেফাক) সভাপতি আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

আজ সোমবার ঢাকার ফরিদাবাদ মাদরাসায় অনুষ্ঠিত বেফাকের মজলিসে উমুমী (কাউন্সিল) অধিবেশনে তিনি এ দাবি জানান।

সভাপতির বক্তব্যে আল্লামা শফী বলেন, প্রধানমন্ত্রী গত বছরের ১১ এপ্রিল গণভবনে বাংলাদেশের শীর্ষ আলেমদের সাথে অনুষ্ঠিত বৈঠকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ঘোষণা করেন, কওমি মাদরাসার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে ও দারুল উলুম দেওবন্দের মূলনীতিগুলোকে ভিত্তি ধরে কওমি মাদরাসার দাওরায়ে হাদীসের সনদকে মাস্টার্সের (ইসলামিক স্টাটিজ ও আরবী) সমমান প্রদান করা হবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত সংসদে ও মন্ত্রীসভায় তা পাশ করা হয়নি। তিনি বেফাকের মজলিসে উমুমীর সভার পক্ষ থেকে সরকারের কাছে সংসদের চলতি অধিবেশনে আইন পাশের দাবি জানান।

বেফাকের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক এবং মুফতি ফয়জুল্লাহর পরিচালনায় অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহ-সভাপতি আল্লামা আশরাফ আলী, সহ-সভাপতি মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী, মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা মাহমুদুল হাসান, মাওলানা আব্দুল হামীদ, মাওলানা নুরুল ইসলাম, মাওলানা আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুর, মাওলানা সাজেদুর রহমান, মাওলানা মুসলেহ উদ্দীন রাজু, মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, সহকারী মহাসচিব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, মাওলানা নুরুল আমীন, মাওলানা মুনিরুজ্জামান, মাওলানা খালিদ সাইফুল্লাহ সাদী, মহাপরিচালক মাওলানা জুবায়ের আহমদ চৌধুরী প্রমূখ।

অধিবেশনে আল্লামা আহমদ শফীকে সভাপতি, আল্লামা আশরাফ আলীকে সিনিয়র সহ-সভাপতি ও মাওলানা আব্দুল কুদ্দুসকে মহাসচিব করে ১১৬ সদস্য বিশিষ্ট বেফাকের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়। অধিবেশনে রোহিঙ্গা মুসলমানদের যাবতীয় অধিকার, স্বাধীনতা ও নিরাপত্তা বিধান নিশ্চিত, জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণা, ইসলাম বিরোধী এনজিওদের সব অপতৎপরতা বন্ধ করাসহ পাঁচ দফা প্রস্তাব গৃহীত হয়। এছাড়া দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষাসহ দেশের প্রতিটি গ্রাম ও মসজিদ এবং প্রয়েজনীয় স্থানগুলোতে মকতব প্রতিষ্ঠা করা, দ্বীনি ও ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষা চালুসহ সাত দফা কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

আল্লামা শফী আরো বলেন, দুনিয়ার পরিস্থিতি অত্যন্ত নাজুক। এ অবস্থায় উলামায়ে কেরামকে সবসময় ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা পালন করতে হবে। আহলে সুন্নত ওয়াল জামাতের আকীদার উপর অটল থাকা অপরিহার্য। আমাদের আকীদা-বিশ্বাসে ফাটল সৃষ্টি করার জন্য নানা রকম ষড়যন্ত্র চলছে। এ ব্যাপারে সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে। বাতিলের বিভ্রান্তিকর উক্তিগুলোর সমুচিত জবাব দেয়ার জন্য সবসময় প্রস্তুত থাকতে হবে। তা না হলে মুসলমানদের বিপদগ্রস্ত হওয়ার আশংকা করছি।

তিনি বলেন, ইসলামবিরোধী চক্রান্তকারীরা সব সময় ওৎপেতে আছে, কিভাবে উলামায়ে কেরাম থেকে সাধারাণ মানুষের আস্থা সরানো যায়। এ ব্যাপারেও সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। আলেমদেরকে তাবলীগের কাজেও সক্রিয় অংশগ্রহণ করার ধারা অব্যাহত রাখার আহবান জানান তিনি।

তিনি সৌদি আরবে মহিলাদের গাড়ি চালানোর সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানান।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.