কিশোরগঞ্জের তারগঞ্জের বেইলি ব্রিজ : নয়া দিগন্ত
কিশোরগঞ্জের তারগঞ্জের বেইলি ব্রিজ : নয়া দিগন্ত

কিশোরগঞ্জে বেইলি ব্রিজের পাটাতন খুলে গেছে দুর্ভোগে ৬ লাখ মানুষ

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) সংবাদদাতা

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার একমাত্র বেইলি ব্রিজটির পাটাতন খুলে গিয়ে তারাগঞ্জ উপজেলার সাথে যোগযোগব্যবস্থা প্রায় বিচ্ছিন হয়ে পড়েছে। গত শুক্রবার ব্রিজটির পাটাতন খুলে নদীতে পরে যায়।
সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ গত চার দিনেও ব্রিজটি মেরামত না করায় উপজেলা দ্বয়ের ছয় লাখ মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।
এলাকাবাসী বলেন, কিশোরগঞ্জ-তারাগঞ্জ উপজেলার সাথে যোগযোগের একমাত্র মাধ্যম বেইলি ব্রিজটি ৯৩ সালে চাড়াল কাটা নদীর ওপর নির্মিত হয়। নির্মাণের কয়েক বছরের মধ্যে পাটাতনের নাটগুলো চুরি হয়ে যায়। ফলে পাটাতনগুলো নড়বড়ে হয়ে পড়ে। এ ছাড়াও ওই নদী থেকে বালু উত্তোলন করে একটি চক্র রাতে ১০ চাকার ট্রাকে করে ধারণক্ষমতার বেশি বালু লোড করে নিয়ে যায়। এ কারণে ব্রিজটি সময়ের আগেই নড়বড়ে হয়ে পড়ে। ইদানীং নীলফামারী সড়ক ও জনপদ বিভাগ ব্রিজটি ঝুঁকিপূণ ঘোষণা করে পাঁচ টনের বেশি মালামাল পরিবহন না করার জন্য একটি সাাইন বোড ঝুলিয়ে দেয়। এলাকাবাসী বলেন, ব্রিজটির খুলে যাওয়া তিনটি পাটাতনের মধ্যে একটি নদীতে পড়ে গেছে। যেকোনো সময় পাটাতনটি চুরি হতে পারে। কর্তৃপক্ষ ব্রিজটি চার দিনেও মেরামত না করায় মালামাল পরিবহনে অনেক সমস্যায় পড়েছি।
বাহাগীলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান দুলু বলেন, নীলফামারী সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। নীলফামারী সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এ কে এম আমিনুর রহমান বলেন, আমি সংবাদ পেয়েছি। দু’এক দিনের মধ্যে ব্রিজটি মেরামত করা হবে।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.