জা য়া রে র রূ প ক থা  

ভুতুড়ে প্রাণীটা কে রে?

হাসান হাফিজ

(গত দিনের পর)

দেখতে দেখতে দুই সপ্তাহ পার হয়ে গেছে। পানিসঙ্কটের কোনো সুরাহা হয়নি। কুয়োর অদ্ভুত জন্তুটার হুমকি সবাইকে ভয় ধরিয়ে দিয়েছে। নাহ, এভাবে চলে না আর।
শেষতক ধাড়ি কচ্ছপের বউএনকুলু সিদ্ধান্ত নিলো, সে যাবে কুয়োর পাড়ে। সবার জন্য পানি নিয়ে আসবে। কে সে অদ্ভুত প্রাণী, তার আগাপাছতলা উল্টেপাল্টে দেখবে।
কচ্ছপের বউ যাবে শুনে সবাই হাসে। ঠাট্টার হাসি। যেখানে পশুরাজ সিংহ পর্যন্ত ব্যর্থ, সেখানে এই কদাকার কচ্ছপ কী করবে? হুঁ: যত্তসব। হাতি-ঘোড়া গেল তল, মশা বলে কত জল!
এনকুলু অন্যদের খোঁচানো মন্তব্য শুনল। মনটা একটু খারাপ হলো বটে। তবে আপন সিদ্ধান্তে সে অটল। দেরি না করে গুটি গুটি পায়ে রওনা হয়ে যায়।
কুয়োপাড়ে গিয়ে পৌঁছল যখন, তখন শুনতে পেল ভুতুড়ে অদ্ভুত সেই কণ্ঠস্বর। ভয়ধরানো কণ্ঠে কেউ বলছে,
এনকুলু ফিরে যাও,
যদি তুমি ভালো চাও।
যে-ই পানি ধরবে,
দম ফেটে মরবে।
কচ্ছপ-বউ এই হুমকিকে কোনো পাত্তাই দিলো না। টুকটুক করে সে এগোল।

(চলবে)

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.