মোস্তাফিজুর রহমান (ফাইল ফটো)
মোস্তাফিজুর রহমান (ফাইল ফটো)

আইপিএল থেকে মুনাফা ২ হাজার কোটি রুপি!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

পরীক্ষামূলকভাবেই শুরু হয়েছিল ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) প্রথম আসর। সেটি ২০০৮ সালের কথা। সেই টুর্নামেন্টই এখন বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) আয়ের মূল অবলম্বন। বোর্ডের যে আয় এবং লাভ, তার ৯৫ শতাংশই নাকি আসে এই টুর্নামেন্ট থেকে! বোর্ডের একটি সূত্র অন্তত তেমনটাই জানাচ্ছে।

একাদশতম আইপিএলে তাই কোমর বেঁধে নামছে বিসিসিআই। অন্যবারের তুলনায় এ বারের আইপিএল থেকে অনেকটাই বেশি আয় করতে চায় তারা।

আগামী আর্থিক বছরে আয়-ব্যয়ের যে আনুমানিক হিসাব কষেছে বোর্ড, তাতে দেখা গেছে, আইপিএল খাত থেকেই তারা কমপক্ষে দুই হাজার ১৭ কোটি টাকা ঘরে তুলতে চায়।

প্রিমিয়ার লিগ থেকে বোর্ড যখন প্রায় দু’হাজার কোটি টাকা লাভের চিন্তাভাবনা করছে, তখন অন্য উৎসগুলো থেকে সব মিলিয়ে আয় হবে মোটে ১২৫ কোটি টাকা!

এই হিসাব থেকেই স্পষ্ট, বাকি ৩২০ দিনের তুলনায় আইপিএলের ৪৫ দিনে মোট ১৬ গুণ বেশি আয় করবে ভারতীয় ক্রিকেটের সর্বোচ্চ ওই সংস্থা।

লাভই যদি হয় দুই হাজার কোটি টাকা, তাহলে আইপিএল থেকে আয় হবে কত টাকা?

বিসিসিআই-এর ওই সূত্রটি জানাচ্ছে, একাদশ আইপিএল থেকে প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আয় করবে বোর্ড। যার মধ্যে প্রায় ১২ শ' কোটি টাকা খরচ হবে টুর্নামেন্টেরই বিভিন্ন খাতে। আর বাকিটা আসবে ঘরে।

 

এক লাফে ১০ ধাপ এগিয়ে গেলেন মোস্তাফিজ

বাংলাদেশের হাসি মুখের ঘাতক মোস্তাফিজুর রহমান। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে পুরনো ছন্দে ফিরেছেন এই কাটার মাস্টার। চট্টগ্রাম-ঢাকা দুই টেস্টে স্পিন-সহায়ক উইকেটেও ৬ উইকেট শিকার করেছেন এই পেসার। যার ফল পেলেন আইসিসি'র র‌্যাঙ্কিংয়ে। এক লাফে ১০ ধাপ এগিয়ে গেছেন তিনি। দখল করেছেন ৪৯তম স্থান।

মোস্তাফিজ ছাড়াও র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি হয়েছে স্পিনার তাইজুল ইসলামের। ঢাকা টেস্ট চারটি এবং চট্টগ্রাম টেস্টের দুই ইনিংসে চারটি করে আটটি, মোট ১২টি উইকেট শিকার করেছেন তিনি। ফলে দুই ধাপ এগিয়ে ক্যারিয়ার সেরা ৩৪তম অবস্থানে চলে এসেছেন এই স্পিনার।

এছাড়া দীর্ঘ দিন পর জাতীয় দলে ফিরে সেরা এক শ’তে জায়গা পেয়েছেন আবদুর রাজ্জাকও। এই স্পিনার রয়েছেন ৯৫তম অবস্থানে।

আইসিসি'র র‌্যাঙ্কিংয়ে বোলারদের উন্নতি হলেও অবনতি হয়েছে ব্যাটসম্যানদের।

৩১৪ রান করে সিরিজের সেরা ব্যাটসম্যান হলেও র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি হয়নি মুমিনুল হকের। তিন ধাপ অবনমনে অবস্থান ৩০।

পাঁচ ধাপ পিছিয়ে ২৬ নম্বরে অবস্থান করছেন তামিম ইকবাল। তিন ধাপ পিছিয়ে মুশফিকুর রহিম ২৮-এ। ছয় ধাপ পিছিয়েছেন দুই টেস্টে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দেয়া মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তিনি এখন ৫৪ নম্বরে।

১৭ ধাপ পিছিয়ে সাব্বির চলে গেছেন এক শ’র বাইরে (১০৪তম)। তবে টেস্ট সিরিজে না খেললেও ব্যাটসম্যান র‌্যাঙ্কিংয়ে ২২তম অবস্থান ধরে রেখেছেন সাকিব আল হাসান।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.