সোনারগাঁওয়ের মহজমপুর বাজারে ড্রেনের পানি জমে সওজের রাস্তা ভেঙে সৃষ্টি হয়েছে খানা খন্দ : নয়া দিগন্ত
সোনারগাঁওয়ের মহজমপুর বাজারে ড্রেনের পানি জমে সওজের রাস্তা ভেঙে সৃষ্টি হয়েছে খানা খন্দ : নয়া দিগন্ত

সোনারগাঁওয়ে যুবলীগ নেতার ড্রেনের পানিতে ভাঙছে রাস্তা ভোগান্তিতে এলাকাবাসী

সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের জামপুর ইউনিয়নের মহজমপুর বাজার এলাকায় যুবলীগ নেতার ড্রেনের পানিতে সড়ক ও জনপথ (সওজের) বিভাগের রাস্তা ভেঙে খানাখন্দ সৃষ্টি হয়েছে। ফলে এলাকাবাসী ভোগান্তিতে পড়েছেন। ভাঙা রাস্তায় যানবাহন উল্টে ইতোমধ্যে শিক্ষার্থীসহ প্রায় অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের মহজমপুর গ্রামের আব্দুর রশিদ ভূঁইয়ার ছেলে যুবলীগ নেতা দুলাল ভূঁইয়া সড়ক ও জনপথের জায়গা দখল করে অনুমতি ছাড়া রাস্তা কেটে চকে ইরি স্কিমে পানি দেয়ার জন্য ড্রেন নির্মাণ করেন। দীর্ঘ দিন ধরে এ ড্রেন মহজমপুর বাজারের পেছনের থাকলেও এবার তিনি জোরপূর্বক বাজারের মধ্যদিয়ে ড্রেন নির্মাণ করেন। ফলে মহজমপুর বাজারের বিভিন্ন অংশে ড্রেনের পানিতে রাস্তা ভেঙে খানাখন্দ সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে যুবলীগ নেতা দুলাল ভূঁইয়াকে এলাকাবাসী ড্রেন সংস্কার করে দেয়ার জন্য কয়েক দফা অনুরোধ করলেও তিনি কোনো প্রকার কর্ণপাত করেননি।
এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, দুলাল ভূঁইয়া একজন নব্য যুবলীগ নেতা। একসময় তিনি হাঁটে হাঁটে ছাগলের ব্যবসা করতেন। আওয়ামী লীগ দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় আসার পর হঠাৎ করে তিনি যুবলীগ নেতা বনে যান। যুবলীগ পদ-পদবি না থাকলেও তিনি এলাকায় প্রভাবশালী।
বশিরগাঁও গ্রামের সামসুল ইসলাম, আমির হোসেন বলেন, ব্রহ্মপূত্র নদ থেকে ইরি স্কিমের পানি সরবরাহের জন্য যুবলীগ নেতা দুলাল ও তার লোকজন সড়ক কেটে ড্রেন নির্মাণ করেছে। এ ড্রেন দিয়ে পচা দুর্গন্ধ পানি ধান ক্ষেতে দিচ্ছে। এ পচা পানি ড্রেন দিয়ে চুঁইয়ে বাজারের বিভিন্ন অংশে গর্ত সৃষ্টি হয়ে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।
অভিযুক্ত দুলাল ভূঁইয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ড্রেনের পানি যাতে রাস্তায় না যায় সেই বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ছাড়া সওজের রাস্তা কেটে তিনি ড্রেন নির্মাণ করেননি। রাস্তার পাশ দিয়ে ড্রেন করেছেন।
সড়ক ও জনপথ বিভাগের নারায়ণগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী আলিউল হোসেন জানান, বিনা অনুমতিতে কেউ রাস্তা কাটতে পারবে না। তা ছাড়া সড়ক কেটে কেউ ব্যবসায়িক লাভবান হওয়ার জন্য ড্রেন নির্মাণ করে থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সোনারগাঁও উপজেলা প্রকৌশলী আলী হায়দার চৌধুরী জানান, বিষয়টি সরেজমিন তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনূর ইসলাম জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.