বক্সিং রিংয়ে  স্কট ওয়েস্টগ্রাথ (ফাইল ফটো)
বক্সিং রিংয়ে স্কট ওয়েস্টগ্রাথ (ফাইল ফটো)

খেলতে খেলতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন বক্সার

নয়া দিগন্ত অনলাইন

রিংয়েই থেমে গেল ব্রিটিশ বক্সার স্কট ওয়েস্টগ্রাথের লড়াই। যে খেলা এনে দিয়েছিল গ্ল্যামার ও পরিচিতি, তার দাম জীবন দিয়ে দিতে হবে তা কে জানত! ৩১ বছর বয়সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন এই বক্সার।

একটি হেভিওয়েট বক্সিংয়ে বাউটে জেতার পরই ইন্টারভিউ দেয়ার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন স্কট। এরপর তাকে রয়্যাল হ্যামসায়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

ইন্টারভিউ দেয়ার সময়ই ধরা পড়ে, অসুস্থ বোধ করছেন স্কট ওয়েস্টগ্রাথ (ডানে)

 

ডনকাস্টারে হেভিওয়েট বাউটে প্রতিদ্বন্দ্বি ডেক স্পেলম্যানকে টাফ-ফাইটে হারিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন স্কট। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ব্রিটিশ ক্রীড়ামহলে। টুইট করে শোক প্রকাশ করেছেন অনেক ক্রীড়া ব্যক্তিত্বই।

স্কটের মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন তার শেষ প্রতিদ্বন্দ্বি স্পেলম্যান। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘আমি মর্মাহত! কথা বলার মতো ভাষা আমার নেই। স্কটের পরিবারের প্রতি আমার সমবেদনা রইল।’

বান্ধবী নাতালির সাথে স্কট ওয়েস্টগ্রাথ

 

ব্রিটিশ বক্সিং বোর্ড অফ কন্ট্রোলের জেনারেল সেক্রেটারি রবার্ট স্মিথ ওয়েস্টগ্রাথের মৃত্যুর প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বলেন, ‘আমার মনে হয় বক্সিংয়ে এ দেশে মেডিক্যাল সুবিধা শেষ ২০-৩০ বছরে দারুণ পরিবর্তন হয়েছে। আমরাও জানি এটা কঠিন লড়াই। সেই কারণে খেলোয়াড়দের নিরাপত্তার বিষয়টি আমাদের মাথায় থাকে। কিন্তু অনেক সময় আমাদের কিছুই করার থাকে না।’

গত বছর জুনে একই ভাবেই বাউট জেতার দুই দিন পরই মারা যান কানাডার বক্সার টিম হিউজ। স্কটল্যান্ডের মাইক টোওয়েল ব্রেন ইনজুরিতে মারা যান ২০১৬ সেপ্টেম্বরে।

গত সপ্তাহে টোওয়েলর প্রতিদ্বন্দ্বি ডেল ইভেন্স রিং থেকে অবসর নিয়ে বলেন, ‘খেলার প্রতি খিদে থাকলেও ভয় ও আশঙ্কার কারণে সরে দাঁড়ালাম।’

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.