শাকিব-অপুর বিচ্ছেদ কার্যকর
শাকিব-অপুর বিচ্ছেদ কার্যকর

শাকিব-অপুর বিচ্ছেদ কার্যকর

নয়া দিগন্ত অনলাইন

শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিবাহ বিচ্ছেদ কার্যকর হয়েছে। আজ ১২ মার্চ সোমবার থেকে শাকিব ও অপুকে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে গণ্য করা হবে না। এমনটাই জানালেন ঢাকা সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৩) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেন। 

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের মামলাটি খারিজ করব। আজ আমাদের তৃতীয় ও শেষ তারিখ ছিল। এর আগে দুবারে তাঁদের তলব করা হয়, প্রথমবার অপু বিশ্বাস এসেছিলেন, কিন্তু দ্বিতীয় তারিখে কেউ আসেননি। আজ এখন পর্যন্ত শাকিব-অপুর পক্ষে কেউ আমাদের সাথে যোগাযোগ করেননি। যদিও এক পক্ষের কেউ এসে কোনো লাভ নেই। পারিবারিক আইন অধ্যাদেশ, ১৯৬১ অনুযায়ী বিবাহ বিচ্ছেদ কার্যকর হচ্ছে আজ।’


ঢাকা সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৩) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেন বলেন, ‘শাকিব খান যেদিন স্বাক্ষর করেছিলেন, সেদিন থেকে তিন মাস পর কার্যকর হবে ব্যাপারটা এমন নয়। আমরা সিটি করপোরেশন তাদের তিন মাসে তিনবার ডাকব, সেই তৃতীয়বার বিষয়টির ফয়সালা হবে। সেই হিসেবে আজ তাদের বিচ্ছেদ কার্যকর হচ্ছে।’


গত বছরের ডিসেম্বরে অপু বিশ্বাসকে তালাকের নোটিশ পাঠান শাকিব খান। তালাকের একটি কপি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে পাঠানো হয়। গত ২৪ ডিসেম্বর একটি চিঠির মাধ্যমে সিটি করপোরেশনে ১৫ জানুয়ারি হাজির হতে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসকে বলা হয়। সেদিন শুধু অপু বিশ্বাস সিটি করপোরেশনে গেলেও শাকিব খান যাননি। দ্বিতীয়বার ১২ ফেব্রুয়ারি তাঁদের ডাকা হলে দুজনে অনুপস্থিত থাকেন। আজ ১২ মার্চ তৃতীয় ও শেষবারের জন্য তাঁদের আবারও ডাকা হয়েছে। বেলা ১২টা নাগাদ কেউ উপস্থিত না হওয়ায় বিবাহবিচ্ছেদ কার্যকর হয়।

আমার চেষ্টার মূল্যায়ন হয়নি : অপু বিশ্বাস

আলমগীর কবির

সংসার টিকিয়ে রাখার ক্ষেত্রে অপু বিশ্বাস যতটা নমনীয় হয়েছেন, শাকিব খান ততটাই উদাসীন মনোভাব ব্যক্ত করেছেন। এই অবস্থার মধ্যেই সোমবার আনুষ্ঠানিক ভাবে কার্যকর হচ্ছে শাকিব-অপুর বিয়ে বিচ্ছেদ। এদিন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) শাকিব-অপুর তৃতীয় ও শেষ শুনানি হবে।

এর আগের দুটি শুনানিতে শাকিব আসেননি। অপু প্রথম শুনানিতে এলেও দ্বিতীয়টাতে আসেননি। সমঝোতার কোনো সুযোগ নেই দেখে তিনিও বিচ্ছেদ মেনে নেন। গত বছরের ২২ নভেম্বর অপুকে তালাকনামা পাঠান শাকিব। গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়, তিন মাস পর কার্যকর হবে বিবাহ বিচ্ছেদ। সেই হিসাবে ২২ ফেব্রুয়ারি শাকিবের বিয়ে বিচ্ছেদের চিঠি পাঠানোর তিন মাস পূর্ণ হয়।

তবে ওই সময় শাকিব-অপুর বিবাহ বিচ্ছেদ কার্যকর হয়নি বলে জানান ঢাকা সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৩) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেন। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শাকিব খান যেদিন স্বাক্ষর করেছিলেন, সেদিন থেকে তিন মাস পর কার্যকর হবে ব্যাপারটা এমন নয়। আমরা সিটি করপোরেশন তাদের তিন মাসে তিনবার ডাকব, সেই তৃতীয়বার বিষয়টির ফয়সালা হবে। তিনি আরও বলেন, আগামী ১২ মার্চ তৃতীয় ও শেষবারের জন্য তাদের আবারও ডাকা হয়েছে। এদিন যদি তারা না উপস্থিত হন, তাহলে বিবাহ বিচ্ছেদ কার্যকর হয়ে যাবে।

শেষ দিনের ডাকে তাদের দুজনের কেউই যে হাজির হচ্ছেন না এটা শাকিব-অপু উভয়ের পক্ষ থেকেই নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে ব্যক্তিগত জীবনের টানাপোড়েনের মধ্যেও নিজের প্রতি দৃঢ় আস্থা রাখেন অপু বিশ্বাস। নেতিবাচক কোন কিছু মনে ধারণ করে পিছনে পড়ে থাকতে চাননা এই অভিনেত্রী। এমনকি ১২ই মার্চ শাকিবের সাথে যে আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে বিচ্ছেদ কার্যকর হচ্ছে, এই বিষয়েও কোন মাথাব্যাথা নেই।

অপু বলেন, ‘একজনের পক্ষে সংসার ধরে রাখা সম্ভব নয়। এই জায়গাটায় উভয় পক্ষের সমান আগ্রহ দরকার হয়। শুরু থেকেই নিজের সংসার টিকিয়ে রাখার জন্য এককভাবে চেষ্টা করে গেছি। কিন্তু বিপরীত দিক থেকে আমার চেষ্টাকে মূল্যায়ন করা হয়নি। তাই আমি আমার মতো করে পথ চলবো। ছেলেকে নিয়ে একা চলার মতো যোগ্যতা আমার আছে।’

নিজেকে গুছিয়ে নিতে কঠোর পরিশ্রম করছেন তিনি। মুটিয়ে যাওয়া শরীর নিয়ন্ত্রণে আনতে নিয়মিত জিম করা থেকে শুরু করে একটু একটু করে ক্যামেরার সামনে উপস্থিত হচ্ছেন অপু। মঞ্চেও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন। তার এই নতুন ভাবে পথ চলা বুঝিয়ে দিচ্ছে, নিজের গ্লামার ফিরে আনার চেষ্টা করছেন অপু।

নিজের বর্তমান নিয়ে অপু বিশ্বাস বলেন, ‘আমি খুব ভালো আছি। জয়কে নিয়ে আমার সুন্দর সময় কেটে যায়। আর বেশকিছু কাজও সামনে শুরু হবে। সেজন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি।’ তিনি বলেন, ‘এবার নতুন লুকে কাজে ফিরব। নিজের ওজন কমানো কঠিন কাজ হলেও অনেকটা কমিয়েছি। আর রবিন খানের নতুন সিনেমার কাজ দ্রুত শুরু করব।’ অপু বলেন, ‘মা হওয়ার পর ওজন বেড়ে বেশ মুটিয়ে গিয়েছিলাম। এখন অনেকটাই কমেছে। নিয়ম মাফিক খাওয়া-দাওয়া, ব্যায়াম করছি।’

সবশেষ ২০১৫ সালের শেষদিকে বুলবুল বিশ্বাসের ‘রাজনীতি’ সিনেমায় অভিনয় করেন অপু। এ সিনেমাতে তার বিপরীতে নায়ক হিসেবে ছিলেন শাকিব খান। কিন্তু এরপর কালাম কায়সারের ‘মা’ সিনেমার সেটে মহরতে উপস্থিত হলেও সিনেমার কাজ শুরু হয়নি।

এদিকে রবিন খান পরিচালিত, ইমপ্রেসে টেলিফিল্মের নতুন সিনেমায় কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন এ অভিনেত্রী। সিনেমার নাম প্রাথমিকভাবে রাখা হয়েছে ‘কানাগলি’। তবে এ নামটি পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এছাড়া ‘ওপারে চন্দ্রাবতী’, এবং ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ ২’ সিনেমাতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। তবে এসব সিনেমার মধ্যে ‘কানাগলি’-তে আগে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। তাই এ সিনেমার মাধ্যমেই বড়পর্দায় ফিরতে চাইছেন নায়িকা।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.