ইবিতে নদী-অর্থনীতিবিষয়ক সেমিনার

নদী রক্ষার্থে আমরা যদি নদীর পাশে দাঁড়াই নদীও আমাদের পাশে দাঁড়াবে : ড. খলীকুজ্জমান

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি ও পরিসংখ্যান বিভাগের যৌথ আয়োজনে এক সেমিনার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মো: হারুন-উর-রশিদ আসকারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন দেশবরেণ্য অর্থনীতিবিদ ও ঢাকা স্কুল অব ইকোনমির চেয়ারম্যান এবং পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। তিনি বলেন, আমরা হলাম ভাটির দেশের মানুষ। নদীর উজানে যদি বাঁধ বা অন্য কোনোভাবে নদীর স্বাভাবিক গতিপথ আটকানোর চেষ্টা না করা হয় তবে নদীগুলো মরে যাবে না। তিনি বলেন, অভিন্ন নদী ব্যবস্থাপনা হবে এক সাথে। একটি নদীর উৎপত্তিস্থল থেকে শেষ পর্যন্ত যেসব দেশের ওপর দিয়ে নদীগুলো প্রবাহিত হয় সেসব দেশকে এক সাথে কাজ করতে হবে নদীর পানি সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনের জন্য। তিনি বলেন, নদী রক্ষার্থে আমরা যদি নদীর পাশে দাঁড়াইÑ নদীও আমাদের পাশে দাঁড়াবে।
তিনি তার বক্তব্যে আরো বলেন, আমরা শুধু প্রকল্পের কথা বলি কিন্তু সেই প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট মানুষের কথা চিন্তা করি না। আমাদের সঠিক মানুষ হতে হবে কথা ও কাজের মধ্য দিয়ে। সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যে ভিসি প্রফেসর ড. মো: হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, আমরা পৃথিবীতে যত বড় বড় নদী দেখি তার মধ্যে দক্ষিণ আমেরিকার আমাজান নদী অন্যতম। এই আমাজান নদীকে কেন্দ্র করে পৃথিবীর অনেক বিরল জীববৈচিত্র্য ও প্রজাতি বেঁচে আছে। ভিসি বলেন, পৃথিবীতে ভুগর্ভস্থ পানি সবচেয়ে বেশি মজুদ আছে কানাডায় আর সবচেয়ে কম পানির মজুদ আছে কাতারে। সঠিক পানি ব্যবস্থাপনা না হলে জীববৈচিত্র্য হারাবে, প্রাকৃতিক ভারসাম্য বিনষ্ট হবে দেশে দেশে খরা, অনাবৃষ্টি ও দুর্ভিক্ষ দেখা দেবে। তিনি আরো বলেন, পৃথিবীতে কোনো কারণে যদি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাধে তা হবে শুধু পানির জন্য অন্য কোনো কারণে নয়। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রিভারাইন পিপলের মহাসচিব ও দৈনিক সমকালের সহকারী সম্পাদক শেখ রোকন। ‘রোল অব ইউনিভার্সিটি টু প্রমোট রিভার ইকোনমি’ শীর্ষক এই সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর ড. মো: সেলিম তোহা, পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. মো: কামাল উদ্দিন, অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো: আবদুল মুঈদ এবং পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশনের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো: জসিম উদ্দিন। সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিসংখ্যান বিভাগের সভাপতি সহকারী অধ্যাপক আলতাফ হোসেন রাসেল। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রওশন আরা সেতু। সেমিনারে নদী অর্থনীতি বিনষ্ট হওয়ার কারণ এবং তা পুনরুদ্ধারে বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণ শিক্ষার্থীরা কী করতে পারে এ বিষয়ে আলোচনা ও সুপারিশ গৃহীত হয়। সেমিনারে উপস্থিত ছিলেনÑ প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান, প্রফেসর মোহাম্মদ মামুন, প্রফেসর ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, প্রফেসর ড. জাকারিয়া রহমান, ছাত্রলীগ ইবি শাখার সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিন, সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিমসহ অর্থনীতি ও পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্রছাত্রী ও ছাত্রলীগ ইবি শাখার নেতাকর্মী ছাড়াও স্থানীয় কুমার নদ সংরক্ষণ কমিটির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সেমিনার শেষে রিভারাইন পিপল ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা কমিটি ঘোষণা করা হয়। বিজ্ঞপ্তি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.