আহত যাত্রী বাহারো
আহত যাত্রী বাহারো

‘আমি ভাগ্যবান তাই বেঁচে আছি’

নয়া দিগন্ত ডেস্ক

কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত ইউএস বাংলার উড়োজাহাজের এক নেপালি যাত্রী জানিয়েছেন, তিনি ভাগ্যবান, তাই তিনি এখনো বেঁচে আছেন। তিনি বলেন, ‘জানালার পাশেই ছিল আমার আসন। দুর্ঘটনার বিষয়টি টের পেয়ে আমি কাচ ভেঙে বেরিয়ে আসি। তারপর আমার আর কিছু মনে নেই।’ উড়োজাহাজে থাকা ওই যাত্রীর বরাত দিয়ে কাঠমান্ডু পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, যাত্রীদের মধ্যে ১৬ জন নেপালি। বহোরা নামে ওই যাত্রী জানান, তিনিসহ ওই ১৬ জন নেপালের বিভিন্ন সংস্থার হয়ে বাংলাদেশে প্রশিক্ষণ নিতে গিয়েছিলেন।
হাসপাতালে জ্ঞান ফিরলে বহোরা আরো জানান, ঢাকা থেকে উড়োজাহাজটি উড্ডয়নের সময় স্বাভাবিক ছিল। কিন্তু কাঠমান্ডুতে অবতরণের পূর্বমুহূর্তে এটি অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করে। উড়োজাহাজটি প্রবল ঝাঁকুনি খেতে থাকে এবং এর পরপরই বিকট শব্দ শুনতে পাই। তিনি বলেন, ‘আমার আসনটি জানালার কাছে ছিল এবং আমি জানালার কাচ ভেঙে বাইরে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হই।’
তিনি আরো বলেন, ‘উড়োজাহাজটি থেকে বেরিয়ে আসার পর আমার আর কিছু মনে নেই। কেউ একজন আমাকে প্রথমে সিনামঙ্গল হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে আমার বন্ধুরা আমাকে নরভিক হাসপাতালে নিয়ে আসেন।’ তিনি জানান, তার মাথায় ও পায়ে আঘাত লেগেছে। ভাগ্যক্রমে তিনি বেঁচে গেছেন।
গতকাল সোমবার ঢাকা থেকে নেপালের উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস বাংলার একটি উড়োজাহাজ কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত হয়। ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে কাঠমান্ডুর কয়েকটি সংবাদ সংস্থা জানায়, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ২২ জনকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত হয়েছেন ৫০ জন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.