দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১৭ রুটে বাস ধর্মঘটের ঘোষণা

বরিশাল ব্যুরো

ঝালকাঠি বাস মালিক কর্তৃক বেআইনিভাবে বাস পারমিটের শর্ত ভঙ্গ করে মহাসড়কের পাশে অননুমোদিত বাস টার্মিনাল তৈরি করে গাড়ি চলাচল করা এবং মির্জাগঞ্জ উপজেলায় বাসে চাঁদাবাজির প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বরিশাল-পটুয়াখালী-বরগুনা মালিক সমন্বয় পরিষদ। গতকাল বেলা ১১টায় নগরীর রুপাতলী বাস টার্মিনালের সামনের মহাসড়কে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এ সময় বরিশাল থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১৭ রুটে বাস ধর্মঘটের ঘোষণা করেন বাস মালিক সমন্বয় পরিষদের নেতৃবৃন্দ।
বরিশাল বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি আজিজুর রহমান শাহিনের সভাপতিত্বে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন চলাকালীন অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক কাওসার হোসেন শিপন, শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সুলতান মাহমুদ প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ঝালকাঠি মালিক সমিতি কুয়াকাটাসহ ১১টি রুটে তাদের বাস চালাতে চায় যা সম্পূর্ণভাবে অবৈধ। অথচ তারা ৩ জানুয়ারি থেকে বরিশালের বাস ঝালকাঠির ওপর দিয়ে চলতে দিচ্ছে না। এতে করে যাত্রীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। এ অচলাবস্থার সমাধান না হলে আগামী ১৪ মার্চ থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১৭টি রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দেন সমিতির নেতৃবৃন্দ।
ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ দাবি করছেন তারা কুয়াকাটা রুটে বাস চালাবে। কিন্তু বরিশাল, পটুয়াখালী ও বরগুনা মালিক সমিতি এই দাবি মানতে নারাজ। এই নিয়ে দ্বন্দ্বে তিন মাস ধরে বরিশাল ও ঝালকাঠির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১৭টি রুটের মধ্যে ছয়টি রুটে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এরই মধ্যে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি নলছিটির রায়পুর এলাকার মহাসড়কের ওপর অস্থায়ী বাস টার্মিনাল করেছে। ফলে সাধারণ যাত্রীদের বরিশাল বাস টার্মিনাল থেকে চার কিলোমিটার দূরত্বে নামতে হয়। আর এই পথ বিকল্প বাহনে করে যাত্রীদের বরিশাল শহরে আসতে হচ্ছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.