কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত বিমানে ছিলেন যশোরের সানজিদা ও তার স্বামী-সন্তান

যশোর অফিস
কাঠমান্ডুতে বিমানবন্দরে ইউএস বাংলার যে উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়েছে, তাতেই ছিলেন যশোরের মেয়ে সানজিদা হক বিপাশা, স্বামী রফিক জামান ও একমাত্র সন্তান ছেলে অনিরুদ্ধ।
বিমান বিধ্বস্তর খবরে শোকে স্তদ্ধ যশোরের উপশহর এলাকার মানুষ।
উপশহর এ ব্লকের ২৪৫ নম্বর বাড়িতে থাকা বাবা সাবেরুল হক এখনো জানেন না কি হয়েছে। বাড়িতে লোকের আনাগোনা দেখে তারো কৌতূহল বাড়ছে।
উপশহরের সাবেরুল হকের তিন সন্তানের মধ্যে সানজিদা হক বিপাশা সবার বড়। সানজিদা হকের দুই ভাই মিথুন ও উইন। তারাও ঢাকায় বসবাস করেন।
সানজিদা হক বিপাশা সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) প্রোগ্রাম অফিসার পদে কর্মরত ছিলেন বলে জানা গেছে।
স্বামী রফিক জামান এক সময় সাংবাদিকতা করতেন। বর্তমানে তিনি ব্যবসায় করেন। স্ত্রীর সাথে নেপালে যাচ্ছিলেন রফিক জামান।
সানজিদা হক বিপাশার চাচাতো ভাই ফজল মাহমুদ জানান, বিকেল ৪টায় তারা খবর পেয়েছেন বিমান বিধ্বস্তের। এরপর ঢাকায় বসবাস করা ভাইদের সাথে যোগাযোগ করেন। তারা শান্ত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। সোমবার বেলা ৩টায় বিমানটি নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন এয়ারপোর্টে দুর্ঘটনার শিকার হয়। বিমানটি ঢাকা থেকে ছেড়ে গিয়ে বেলা ২টা ২০ মিনিটে নেপালে অবতরণ করার সময়েই দুর্ঘটনার শিকার হয়। 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.