কাগিসো রাবাদা
কাগিসো রাবাদা

নিষিদ্ধ রাবাদাই নাম্বার ওয়ান

নয়া দিগন্ত অনলাইন

আচরণবিধি ভঙের কারণে নিষেধাজ্ঞা পাওয়ায় চলমান অস্ট্রেলিয়া-দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ও চতুর্থ টেস্টে খেলতে পারবেন না প্রোটিয়া পেসার কাগিসো রাবাদা। গতকাল এমন নিষেধাজ্ঞা পেয়ে স্বাভাবিকভাবেই মন খারাপ রাবাদার। কিন্তু পরদিনই সুসংবাদই পেলেন তিনি। আবারো আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ে টেস্ট বোলারদের তালিকায় শীর্ষে উঠলেন রাবাদা। ইংল্যান্ডের ডান-হাতি পেসার জেমস এন্ডারসনকে সরিয়ে শীর্ষে উঠেন রাবাদা।

পোর্ট এলিজাবেথে গতকাল শেষ হওয়া সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ১৫০ রানে ১১ উইকেট নেন দ্বিতীয় স্থানে থাকা রাবাদা। তার এমন বিধ্বংসী বোলিং নৈপুণ্যে ৬ উইকেটে ম্যাচ জিতে সিরিজে সমতা আনে দক্ষিণ আফ্রিকা।

সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট শেষে নতুন র‌্যাঙ্কিং ঘোষণা করে আইসিসি। সেখানে ৯০২ রেটিং নিয়ে শীর্ষে উঠে আসেন রাবাদা। ৮৮৭ রেটিং নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নেমে যান এন্ডারসন। ২৮ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ৯শ’ রেটিং স্পর্শ করলেন রাবাদা। দক্ষিণ আফ্রিকার চতুর্থ বোলার হিসেবে এমন কৃতিত্ব গড়লেন তিনি। এর আগে ভারনন ফিলান্ডার, শন পোলক ও ডেল স্টেইন টেস্ট ক্যারিয়ারে ৯শ’ বা তার বেশি রেটিং অর্জন করেছিলেন।

এদিকে, সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ইনিংসে অপরাজিত ১২৬ রান করেন দলের সেরা ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্স। তাই র‌্যাঙ্কিংয়ে তালিকায় পাঁচ ধাপ এগিয়ে সপ্তম স্থানে উঠে এসেছেন ডি ভিলিয়ার্স। ব্যাটসম্যানদের তালিকায় যথারীতি শীর্ষে আছেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ।

 

মাঠের সেই কাণ্ডে 'নিষিদ্ধ' হলেন রাবাদা

এলিজাবেথে অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে ব্যাট-বলের উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ছে পুরো মাঠেই। কখনো মাঠের বাইরে। প্রথম টেস্টে অসি ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নারের সাথে প্রোটিয়া ডি ককের বাক-বিতণ্ডা। ফলাফল ওর্য়ানারের জরিমানা ও ডিমেরিট পয়েন্টযুক্ত। আর দ্বিতীয় টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিধ্বংসী বোলার কাগিসো রাবাদার আক্রমণাত্মক উদযাপনের ফলাফল দুই ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা।

দ্বিতীয় টেস্টে ১১ উইকেট শিকার করেছেন রাবাদা। প্রথম ইনিংসে নিয়েছিলেন পাঁচটি উইকেট। সেদিন তার প্রথম শিকার ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। তাকে সাজঘরে ফেরানোর সময় রাবাদার উদযাপন ছিল খুবই দৃষ্টিকটু। স্মিথের মুখের সামনে এসে বার বার আগ্রাসী উদযাপন করেন এই প্রোটিয়া পেসার। শুধু তা-ই নয়, ক্রিজ ছাড়ার সময় স্মিথের গায়ে জোরে ধাক্কা লাগে তার। সাথে সাথেই ফিরে তাকান স্মিথ।

পুরো ঘটনায় রাবাদা এতটাই আক্রমণাত্মক ছিলেন যে, তার শাস্তি প্রায় নিশ্চিত ছিল। সেটাই হয়েছে। সোমবার টেস্ট শেষ হওয়ার পরই আইসিসি ঘোষণা দেয়, পরের দুটি টেস্টে নিষিদ্ধ রাবাদা।

শাস্তি ঘোষণা করেন ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রো বলেন, 'আমার মনে হয় রাবাদার আচরণ ঠিক ছিল না। তিনি ইচ্ছে করলে ধাক্কা এড়াতে পারতেন। আমি এমন কোনো প্রমাণ পাইনি যে এটা অনিচ্ছাকৃত ছিল।'

অপরদিকে শাস্তি মেনে নিয়ে রাবাদা বলেছেন, 'আমি দলের ক্ষতি করছি, নিজেরও ক্ষতি করছি। এসব থামাতেই হবে। আমি বারবার নিজের দলকে ডুবিয়ে দিতে চাই না।'

তবে এই সিদ্ধান্তকে মেনে নিতে পারছেন না দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস। বলেন, 'ডেভিড ওয়ার্নার যদি কুইন্টন ডি ককের সাথে ঝামেলা করে নিষিদ্ধ না হন, তা হলে রাবাদাকে কেন হবে?'

এই সিরিজের দুটি টেস্ট এখনো বাকি। দুই দলের খেলোয়াড়দের এই দ্বন্দ্ব পরে আরো উত্তেজনা ছড়ায় কিনা তা-ই এখন দেখার বিষয়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.