স্টোকস ফেরাতে ইংল্যান্ডের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে : মঈন আলী

নয়া দিগন্ত অনলাইন

অলরাউন্ডার বেন স্টোকস ফেরায় ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছে বলে মনে করেন দলটির স্পিন অলরাউন্ডার মঈন আলী। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দু’ম্যাচের টেস্ট সিরিজের আগে এমন মন্তব্য করেন মঈন। তিনি বলেন, ‘স্টোকস ফেরাতে দলের মধ্যে ভারসাম্য এসেছে। ইংল্যান্ডের সেরা খেলোয়াড়দের একজন সে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ভালো করার ব্যাপারেও আত্মবিশ্বাসী দল।’

গত সেপ্টেম্বরে ব্রিস্টলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডে শেষে রাতে পানশালার বাইরে মারামারির ঘটনায় লিপ্ত হলে স্টোকসকে জাতীয় দলে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। ফলে দীর্ঘদিন জাতীয় দলের বাইরে ছিলেন স্টোকস। অবশেষে গত ফেব্রুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে আবারো দলে ফিরেন তিনি। ওই সিরিজে ব্যাট হাতে ১৪১ রান ও বল হাতে ৫ উইকেট শিকার করে ইংলিশদের ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন স্টোকস।
ওয়ানডের পর এবার টেস্ট দলেও ডাক পেলেন স্টোকস। গত সেপ্টেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আবারো বড় ফরম্যাটে খেলবেন তিনি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে স্টোকসকে দলে পেয়ে উচ্ছসিত ইংল্যান্ডের স্পিন অলরাউন্ডার মঈন বলেন, ‘সেরা খেলোয়াড়ের অন্তর্ভুক্তি দলের মধ্যে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে। স্টোকস সবসময়ই দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। দলের হয়ে পারফরমেন্স করার জন্যও সে মুখিয়ে আছে। সে ইংল্যান্ড দলে থাকলে আমরা আরো শক্তিশালী দলে পরিণত হই। এতে সকলের মধ্যে ভালো খেলার আগ্রহ বেশি তৈরি হয়। কারণ, দলের হয়ে পারফরমেন্স করতে উদগ্রীব থাকে সে।’
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হার দিয়ে ওয়ানডে সিরিজ শুরু করে ইংল্যান্ড। পরের দু’ওয়ানডে জিতে সিরিজ জয়ের দ্বারপ্রান্তে চলে যায় তারা। কিন্তু চতুর্থ ম্যাচে জয়ের স্বাদ নিয়ে সিরিজের লড়াইয়ে টিকে থাকে নিউজিল্যান্ড। তবে পঞ্চম ও শেষ ওয়ানডে জিতে ঠিকই সিরিজ নিজেদের করে নেয় কিউইরা। ওয়ানডে সিরিজে যেমন প্রতিন্দ্বন্দিতা হয়েছে, ঠিক তেমনি আসন্ন টেস্ট সিরিজেও লড়াই হবে বলে মনে করেন মঈন, ‘আমার মনে হয়, টেস্ট সিরিজে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। তারা খুবই ভালো দল এবং তাদের দলে বেশ কয়েকজন বিশ্বমানের খেলোয়াড় রয়েছে যারা দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে। যারা যেকোন সময়ে ম্যাচের পরিস্থিতি পাল্টে দিতে পারেন। লোয়ার-অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা দু’দলের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দিতে পারে বলে আমি মনে করছি। তারপরও নিজেদের দিনে যারা সবদিক দিয়ে ভালো খেলবে, তারাই সাফল্য অর্জন করতে পারবে।’
অকল্যান্ডে সিরিজের প্রথম টেস্টে নিজের ক্যারিয়ারের ৫০তম টেস্ট ম্যাচ খেলতে নামবেন মঈন। এমন মাইলফলক নিয়ে মঈন বলেন, ‘দেশের হয়ে ৫০তম টেস্ট ম্যাচ খেলা সবসময়ই বড় অর্জন। স্বাভাবিকভাবেই এটা আমার জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে।’
উল্লেখ্য, এটিই হবে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচ।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.